Main Menu

র‌্যাব-১১ এর অভিযানে ৭,৮৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধারসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

১৫ অক্টোবর বৃহ্স্পতিবার রাত ভোর ০৩.৩০ সময় র‌্যাব-১১, সিপিএসসি, নারায়ণগঞ্জ এর বিশেষ অভিযানে গোপন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন চিটাগাং রোড এলাকায় ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে চেকপোষ্ট স্থাপন করে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকার তল্লাশী করে ৭,৮৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয় এবং ইয়াবা পাচারের দায়ে ০২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। আটককৃত আসামীরা হলো ১। আরিফ মঈনউদ্দিন (৩০) ও ২। জুলি আক্তার @রুপা (২৮)।

প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত আসামী আরিফ মঈনউদ্দিন পেশায় একজন এমবিবিএস ডাক্তার। সে চট্টগ্রামের স্বনামধন্য বেসরকারী মেডিকেল কলেজ ইউএসটিসি হতে ২২তম ব্যাচে এমবিবিএস পাশ করে। বর্তমানে সে চট্টগ্রামের বেসরকারী রয়েল হাসপাতালের কর্মরত রয়েছে। ডাক্তারী পেশার পাশাপাশি সে নিয়মিত ইয়াবা সেবন করতো এবং একপর্যায়ে নিজেই ইয়াবার ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়ে। প্রথমদিকে সে চট্টগ্রামের খুচরা মাদক ব্যবসায়ীদের ইয়াবা সরাবরাহ করে এবং পরবর্তীতে প্রতিমাসে ৫ থেকে ৬ বার চট্টগ্রাম থেকে ইয়াবা নিয়ে এসে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও এর আশপাশের এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ ও বিক্রয় করতে শুরু করে। মহান ডাক্তারী পেশার আড়ালে আর্থিকভাবে দ্রæত লাভবান হওয়ার জন্য সে অত্যন্ত কৌশলে মাদক ব্যবসার সিন্ডিকেট গড়ে তোলে। তার এই অবৈধ মাদক ব্যবসার সিন্ডিকেটের সাথে একাধিক নারী ও পুরুষ সহযোগী হিসেবে জড়িত আছে মর্মে জানা যায়। এরই প্রেক্ষিতে জুলি আক্তার @রুপা নামক এক নারীর সাথে তার পরিচয় হয় এবং গ্রেফফতারকৃত আরিফ মঈনউদ্দিন তাকে নিয়ে চট্টগ্রামের খুলশী এলাকায় একটি ফ্ল্যাট বাসা ভাড়া নিয়ে একত্রে বসবাস করার পাশাপাশি মাদকদ্রব্য ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য ১৫ অক্টোবর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে উক্ত মাদকব্যবসায়ী চট্টগ্রাম হতে ভাড়াকৃত প্রাইভেটকারযোগে ঢাকায় ইয়াবা নিয়ে আসছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল রাত ০৩.৩০ ঘটিকার সময় নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন চিটাগাং রোডস্থ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চেকপোষ্ট স্থাপন করে। চেকপোষ্টে গাড়ী থামিয়ে তল্লাশীকালে চট্টগ্রাম হতে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকার থেকে ৭,৮৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধারসহ ইয়াবা পাচারের দায়ে মাদক ব্যবসায়ী ১। আরিফ মঈনউদ্দিন (৩০) ও তার সহযোগী ২। জুলি আক্তার @রুপা (২৮)’ কে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ডাক্তারী পেশার আড়ালে আর্থিকভাবে দ্রæত লাভবান হওয়ার জন্য সহযোগী আসামীর পরষ্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ ইয়াবা পাচার করে আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.