Main Menu

শিশু অপহরন ও ধর্ষনের পর হত্যার দায়ে ৫ জনের ফাঁসি

নাহিদ আখতার(জয়পুরহাট) ১২ অক্টোবরঃ সোমবারঃঃ জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার রশিদপুর (মোলান) গ্রামে আড়াই বছরের শিশু আরাধাকে অপহরনের পর হত্যার দায়ে ৫ জনকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া অপরহন মামলায় তাদের প্রত্যেককে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও মোট ১৭ লাখ টাকা জরিমানা করে আদালত। সোমবার দুপুরে জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতের বিচারক মোঃ রুস্তম আলী এ রায় দেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, পাঁচবিবি উপজেলার বিনধারা গ্রামের নিরেন্দ্রনাথের ছেলে উত্তম কুমার সরকার (২৯), মৃত শুকনা বর্মনের ছেলে বিরেন চন্দ্র বর্মন (৩৮), মৃত শশোধরের ছেলে সন্তেজ সরকার ওরফে টেপলু (২৮), মৃত মমতাজ উদ্দীনের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান রাব্বু (৩৮) ও আঃ ওহাব মন্ডলের ছেলে ওবাইদুল ইসলাম (২৫)। এর মধ্যে ১ আসামী উত্তম কুমার পলাতক রয়েছেন। মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ২২ ডিসেম্বর দুপুরে শিশু আরাধা বাড়ির বাহিরে খেলতে গেলে আসামীরা মুক্তিপনের উদ্দেশ্যে তাকে অপরহন করে নিয়ে যায়। পরে তারা অজ্ঞাত পরিচয়ে মোবাইল ফোনে শিশুটির বাবা পরেশ চন্দ্র বর্মনের কাছে অপহরনের বিষয়টি জানিয়ে ফোন বন্ধ করে রাখে। এরপরে পরেশ আসামীদের চিনতে পেরে থানায় একটি অপরহন মামলা করলে আসামীরা শিশুটিকে শ্বাসরোধে হত্যা করে উত্তমের বাড়ীর পাশের একটি পুকুর পাড়ে আলগা মাটির ভেতর লাশ চাপা দিয়ে রাখে। মামলার ৩দিন পর স্থানীয়রা ওই পুকুর পাড়ের মাটির ভেতর শিশুটির হাত দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। পরে শিশুটির পিতা বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে পাঁচবিবি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার তদন্তকারী অফিসার জেলা ডিবির পুলিশের তৎকালীন পরিদর্শক শেখ মাহফুজার রহমান ২০১৬ সালের ১০ মার্চ আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে বিজ্ঞ আদালত আজ এ রায় প্রদান করেন দেন। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি ছিলেন, এ্যাডঃ নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল পিপি, আসামীপক্ষে আইনজীবী রাইহান নবী, আফজাল হোসেন ও হেনা কবির। আসামীপক্ষের আইনজীবি রায়হান নবী বলেন, আমরা এ রায়ে সন্তুষ্ট নয়। আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করবChat Conversation EndType a message…






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.