Main Menu

ডিমলায় ধর্ষণের প্রতিবাদে মানবন্ধন

মোঃ জাহিদুল ইসলাম, ডিমলা(নীলফামারী) প্রতিনিধি ঃ “পিছিয়ে থাকবে না একটিও মানুষ, এগিয়ে যাবে সবাই” বাংলাদেশ স্বাধীন ও সার্বভৌম একটি দেশ, লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। প্রত্যেক মানুষই স্বপ্ন দেখে- তার নিরাপদ আবাসন, নিরাপদ শিক্ষাঙ্গন, নিরাপদ সমাজ ব্যবস্থা। বর্তমানে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যই হচ্ছে বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে, ঠিক এরকম একটি সময়েই নারীর প্রতি চলমান বিভিন্ন নির্যাতনের সাথে যুক্ত হয়েছে ধর্ষন, গনধর্ষন এবং ধর্ষন পরবর্তী হত্যা। যার শিকার হচ্ছে এদেশের নারী, শিশু ও কিশোরীরা। এই সহিংসতা ধনী, গরীব, শিক্ষিত, অশিক্ষিত, গ্রাম ও শহর সর্বক্ষেত্রেই বিদ্যমান। অত্যন্ত পরিতাপের সঙ্গে আমরা দেখছি যে, কোভিড-১৯- মহামারী পরিস্থিতির বিপর্যস্থ অবস্থা যখন মানুষকে মোকাবেলা করতে হচ্ছে ঠিক সেই সময়েও এরূপ জঘন্য অনাকাঙ্খিত ঘটনার কোন ব্যতয় ঘটেনি। এ প্রসঙ্গে কিছু সমসাময়িক ঘটনা
খাগড়াছড়ির ভারসাম্যহীন নারীকে নয় জন মিলে ধর্ষনের পর তারা বাড়ীতেও লুটপাট করে- ২৪ সেপ্টেম্বর-২০২০, সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে স্বামীকে বেধে রেখে এক নববিবাহিত স্ত্রীকে গণধর্ষন-২৬ সেপ্টেম্বর-২০২০, রাজশাহীর তানোরে তিনদিন বেধে রেখে গির্জায় এক কিশোরীকে ফাদার কর্তৃক ধর্ষন ৩০ সেপ্টেম্বর, গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার, যৌতুকের জন্য নির্যাতনের শিকার- ’০৩ অক্টোবর২০২০ইং, মাদ্রাসার শিক্ষক কর্তৃক ধর্ষনের শিকার ৯বছরের এক ছাত্রী- ০৩ অক্টোবর ২০২০ইং, ব্রা²ন বাড়িয়ায় স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামীকে পিটিয়ে আহত- ০৪অক্টোবর’,২০২০ইং, জামালপুরে স্বামীর হাতে স্ত্রী হত্যা- ০৫ অক্টোবর ২০২০ইং, গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় নবম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষনের শিকার- ০৫ অক্টোবর২০২০ইং, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় এক নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন চালানোর এক মাস পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে- ০৫ অক্টোবর-২০২০, পার্বতীপুরের ৫বছরের শিশু পুজাকে প্রলোভন দেখিয়ে ধান ক্ষেতে ধর্ষন- ১৮ অক্টোবর, ২০১৬

দেশে জানুয়ারী ২০২০ হতে সেপ্টেম্বর-২০২০ এই নয় মাসে প্রতিদিন গড়ে তিনটির বেশী ধর্ষনের ঘটনা সংঘঠিত হয়েছে। নয়মাসে মোট ৯৭৫টি ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে- তার মধ্যে ২০৮জন গনধর্ষনের শিকার, ধর্ষনের পর হত্যার শিকার- ৪৩জন নারী, যৌন হয়রানির শিকার-১৬১জন, যৌন হয়রানির কারণে ১২জন নারী আতœহত্যা করেছে। এছাড়াও আরো অনেক ঘটনা রয়েছে যে গুলো অপ্রকাশিতই থেকে যায়। উপরে উল্লেখিত ঘটনা এবং নির্যাতনের বিভিন্নতা প্রমান করে সম্প্রতি দেশে নারী ও শিশুর উপর সহিংসতা গুলো কি ভয়াভয় আকার ধারণ করেছে। এই ঘটনা গুলোর হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না প্রতিবন্ধী নারীও, মেয়ে এমনকি ছেলে শিশুরাও ।

এটাই যেনো বাংলাদেশের মানুষের নিয়তি হয়ে দাড়িয়েছে। তাই আমরা অত্যন্ত জোড়ালো ভাবে বলতে চাই প্রকৃত অপরাধীকে আইনের আওতায় এনে দ্রæতবিচারের রায় কার্যকর করা, ধর্ষন, গণধর্ষনের মতো ঘৃণ্য অপরাধের বিচার প্রক্রিয়া স্বল্প সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করা, ঘটনার তদন্তের সাথে সম্পৃক্ত সংশ্লিষ্ট প্রত্যেকের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা, মিডিয়ার ভূমিকাকে আরো শক্তিশালী করা। পাশাপাশি পরিবার, সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ, সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের সম্পৃক্ততাকে ঐক্যবদ্ধ করে সম্মলিতভাবে আসুন আমরা “নারী ও কন্যাশিশুর প্রতি ধর্ষনের বিরুদ্ধে জোরালো আওয়াজ তুলি। দেশের ধর্ষণ ও হত্যা ঘটনা মহামারি আকার ধারণ করেছে। এ থেকে উত্তরণের জন্য ধর্ষকদের প্রশ্রয়দাতাদের বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। দেশে আইন করে ধর্ষণ ও হত্যাকারীদের ক্রস ফায়ারের আওতায় আনতে হবে।

আর এই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই নীলফামারীর ডিমলা সুঠিবাড়ি মোড় স্মৃতি অ¤øান চত্তরে ৮ই অক্টোবর রোজ বুধবার সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে “নারী ও কন্যাশিশুর প্রতি ধর্ষনের বিরুদ্ধে মানববব্ধন করে, ডিমলা পল্লীশ্রী। সেখানে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধনে, উপস্থিত ছিলেন, পুরান চন্দ্র বর্মণ প্রকল্প সমন্বয়কারী, মইনুল হক বাপ্পি প্রজেক্ট ম্যানেজার রিপ প্রকল্প, বেগম নুর নাহার ডগঞ ম্যানেজার রিপ প্রকল্প, গোলাম মোস্তফা এফ পি রিকল প্রকল্প, সুজন, অজয়,প্রভাস,কামরুজ্জামান প্রমুখ






Related News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.