Main Menu

কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গন থেকে রক্ষার দাবীতে মানববন্ধন

সিলেট প্রতিনিধি :: সিলেটের বি:বাজারের ৩নং দুবাগ, ৫নং কুড়ার বাজার ইউনিয়ন ও ৪নং শেওলা ইউনিয়ন এর কোনা শালেশ্বর, বালিঙ্গা, শালেশ্বর, দিগলবাক, কাকরদি ও ঢেউনগর গ্রামকে কুশিয়ারা নদীর ভাঙ্গনের করাল গ্রাস থেকে রক্ষার দাবীতে কুশিয়ারা নদী ভাঙ্গন রোধ কমিটি কোনা শালেশ্বর বিয়ানীবাজারের উদ্যোগে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আজ বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক মাননববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
কুশিয়ারা নদী ভাঙ্গন রোধ কমিটির আহবায়ক আলী আক্তার উজ জামান চৌধুরী বাবুলের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম আহবায়ক ফখরুল ইসলামের পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ৪নং শেওলা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আখতার হোসেন খান জাহেদ, ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব আলী ওয়াসিকুল জামাল অনি, বালিঙ্গা হাই স্কুল কমিটির সহ সভাপতি মাসুদ আহমদ খান, শাওন আহমদ চৌধুরী, ইরাদ চৌধুরী, সাবেক সেনা কর্মকর্তা জমির আহমদ, মাওলানা আব্দুল হামিদ, রেজুয়ান হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, ব্যবসায়ী শাহীন আহমদ, ফয়জুল হক, শাহী চৌধুরী, তরুণ আহমদ প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বিয়ানীবাজার উপজেলার ৩নং দুবাগ, ৫নং কুড়ার বাজার ইউনিয়ন ও ৪নং শেওলা ইউনিয়ন এর কোনা শালেশ্বর, বালিঙ্গা, শালেশ্বর, দিগলবাক, কাকরদি ও ঢেউনগর গ্রামকে কুশিয়ারা নদী ক্রমাগত ভাঙ্গনের মুখে এসব গ্রামের অস্তিত্ব বিলীনের পথে। কয়েকশ বছর ধরে এই খরস্রোতা কুশিয়ারা নদীর মানুষের কয়েক হাজার একর আবাদি জমি গ্রাস করেও মাথা গোঁজার ঠাইটুকুও কেড়ে নিয়েছে। এসব কারনে অনেকে বাড়িঘর নির্মাণ করে অন্যত্র চলে গেছে। এর মধ্যে যারা নিন্মবিত্ত দিনমজুররা তাদের সহায় সম্বল ও মাথা গোঁজার শেষ সম্বল টুকু হারিয়ে অন্যের জায়গায় আশ্রয় নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। গ্রামে অন্য জমিতে আশ্রয় না পেয়ে শহরের কলোনিতে আশ্রয় গ্রহণ করে অত্যন্ত মানবেতর জীবনযাপন করছেন। গ্রামবাসী কাছে দ্রুত বাধ নির্মান ও নদী শাষন করে তাদের অস্তিত্ব রক্ষা করার জন্য এবং হাজার হাজার গ্রামবাসীকে রক্ষা করতে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার সহ সংশ্লিষ্ট দফতরের সুদৃষ্টি কামনা করছি।






Related News

Comments are Closed