Main Menu

ঝিনাইদহ এলজিডির গাড়ি চালক খুনে স্ত্রীসহ চারজন অভিযুক্ত-(পিবিআই)

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃস্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ঝিনাইদহের গাড়ি চালক এটিএম হাসানুজ্জামান জগলু হত্যা মামলায় স্ত্রীসহ চারজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পিবিআই যশোরের পুলিশ সুপার রেশমা শারমিন। তিনি জানান, ‘১৯ সেপ্টেম্বর আদালত চার্জশিট গ্রহণ করেছেন। তদন্ত শেষে সদর কোর্টে চার্জশিট জমা দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক গাজী মো. মাহাবুবুর রহমান।’ অভিযুক্ত আসামিরা হলেন- নিহত জগলুর স্ত্রী কুষ্টিয়া স্কুলপাড়ার মৃত খন্দকার আব্দুস সামাদের মেয়ে তহমিনা পারভীন তমা ওরফে হালিমা, মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান থানার তাজপুর গ্রামের মৃত কবির হোসেন ছেলে ঢাকার বাসিন্দা মোরসালিন ভুইয়া মিশু, বরিশাল বানারীপাড়ার থানার পশ্চিম জিরারকাঠি গ্রামের মৃত আব্দুল হালিম ঢালীর ছেলে ঢাকার বাসিন্দা আল আমিন ঢালী ও খুলনা ডুমুরিয়ার নরনিয়া গ্রামের মিজানুর রহমান খানের ছেলে ঢাকার উবার চালক হুসাইন আহমেদ। জানা যায়, জগলু ঝিনাইদাহ এলজিইডি’র অফিসের গাড়ি চালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি অফিসের ডরমেটরিতে থাকতেন। ২০১৯ সালের ২৭ আগস্ট রাতে অফিসে কর্মরত আনসার সদস্যকে জানয়ে তিনি ভাইরা বাড়ি দাওয়াত খেতে যান। এরপর তিনি আর ফেরেননি। পরদিন সকলে কুষ্টিয়া মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতার মাধ্যমে পরিবারের সদ্যরা সংবাদ পেয়ে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে লাশ শনাক্ত করে। এর আগে কোতয়ালি থানা পুলিশ খুলনা-কুষ্টিয়া মহাসড়কের যশোরের চুড়ামনকাঠি-বারিনগরের মাঝামাঝি রাস্তার পাশ থেকে অপরিচিত এক ব্যাক্তির লাশ উদ্ধার করে। ওই বছরের ২৮ আগস্ট নিহতের ভাই এটিএম হাকিমুজ্জামান কাবলু অপরিচিত ব্যক্তিদের আসামি করে কোতয়ালি থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে থানা পুলিশ পরে পিবিআই তদন্তের দায়িত্ব পায়। তদন্ত শেষে আটক আসামিদের দেয়া তথ্য ও স্বাক্ষীদের দেয়া বক্তব্য যাচাই বাছাই করে হত্যার সাথে জড়িত থাকায় ওই চারজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। চার্জশিটে অভিযুক্ত চারজনকে আটক দেখানো হয়েছে।






Related News

Comments are Closed