Main Menu

৪ বছরের শিশু ধর্ষণ মামলায় আসামির বয়স কমানোর পায়তারা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :গাইবান্ধার সাঘাটায় ৪ বছরের শিশু ধর্ষণ মামলার আসামির বয়স কমিয়ে মামলা থেকে রেহাই পাওয়ার পায়তারা চলছে। এছাড়া মামলাটি ভিন্নখাতে প্রবাহের জন্য তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তার উপর চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে। রোববার গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে ধর্ষিত শিশুটির অসহায় পিতা এসব অভিযোগ করে ঘটনার সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচার দাবি করেছেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উলে¬খ করা হয়, সাঘাটা উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের খাদেমুল ইসলামের ছেলে খোরশেদ আলম ১২ সেপ্টেম্বর দুপুরের দিকে প্রতিবেশী ওই শিশুটির সাথে খেলাধুলার এক পর্যায়ে পাশর্^বতী একটি নির্মাণাধীন বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটির চিৎকারে খোরশেদ পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় সাঘাটা থানায় গত ১৭ সেপ্টেম্বর মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ খোরশেদকে তার বাড়ি থেকে আটক করে। এরপর থেকে আসামির আত্মীয়-স্বজন একটি প্রভাবশালী কুচক্রি মহলের সহযোগিতায় ধর্ষণের বিচারকার্য বাধাগ্রস্ত করাসহ মামলাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহের অপচেষ্টা ও অপপ্রচার চালাচ্ছে। এছাড়া সাজা থেকে রক্ষার জন্য স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য নজরুল ইসলাম নান্নুর যোগসাজসে আসামি খোরশেদের জন্ম নিবন্ধন সনদপত্রে বয়স কম দেখিয়ে জাল জন্মনিবন্ধন সনদ তৈরী করে দাখিল করেছেন। ওই প্রভাবশালী চক্রের সহযোগিতায় আসামির লোকজন মামলার সংশি¬ষ্ট তদন্তকারি পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রভাবিত করতে নানা অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি শিশু কন্যা ধর্ষণের ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের জন্য সংশি¬ষ্ট সকল বিভাগের প্রতি দাবি করেছেন।






Related News

Comments are Closed