Main Menu

আজ যশোর-৬ কেশবপুর আসনে উপনির্বাচন

অলিয়ার রহমান,কেশবপুর ( যশোর) প্রতিনিধিঃআজ  (মঙ্গলবার) যশোর-৬ (কেশবপুর) সংসদীয় আসনে উপনির্বাচন। এ উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির তিনজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার (নৌকা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মনোনীত প্রার্থী কেশবপুর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নেতা আবুল হোসেন আজাদ (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টি (এরশাদ) সমর্থিত প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব (লাঙ্গল)। তবে বিএনপি এই উপনির্বাচনে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক অংশ নিচ্ছে না। যার কারণে এ আসনটিতে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী শাহীন চাকলাদারের বিজয়ের সম্ভাবনা বেশি।যশোর-৬ (কেশবপুর) সংসদীয় আসনের সংসদ সদস্য সাবেক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক গত ২১ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করায় জাতীয় সংসদে ২৮ জানুয়ারি আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। পরে নির্বাচন কমিশনের কার্যালয় থেকে এ আসনে ২৯ মার্চ উপনির্বাচনের দিন ধার্য করে ১৬ ফেব্রুয়ারি তফসিল ঘোষণা করা হয়। বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে ২১ মার্চ এ আসনটির নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়। এ মাসের ৪ জুলাই নির্বাচন কমিশন থেকে ফের ১৪ জুলাই নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দিলে করোনা ভাইরাসের কারণে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। যে কারণে বিএনপি ভোটের মাঠে কোন প্রচারণায় নেই। যার ফলে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী।কেশবপুর উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ বজলুর রশীদ জানান, কেশবপুর উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে যশোর-৬ (কেশবপুর) সংসদীয় আসন গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২ হাজার ১২২ ও নারী ভোটার ১ লাখ ৮৯৬ জন। ৭৯টি ভোট কেন্দ্রের ৩৭৪ টি ভোটকক্ষের দায়িত্ব পালন করবেন ৭৯ জন প্রিজাইটিং অফিসার, ৩৭৪ জন সহকারি প্রিজাইটিং অফিসার ও ৭৪৮ জন পোলিং অফিসার।এদিকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। জাতীয় পার্টি মনোনীত অপর প্রার্থী হাবিবুর রহমান জানান, অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনিই হবেন বিজয়ী।গত ১১ জুলাই কেশবপুর শহরের আবু শারাফ সাদেক অডিটোরিয়ামে জাতীয় সংসদের ৯০ যশোর-৬ (কেশবপুর) শূন্য আসনের নির্বাচন উপলক্ষে আইন শৃঙ্খলা সংক্রান্ত এক সভায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণেই করোনার মধ্যে উপ-নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান। এবং তিনি নির্বাচনের সাথে সংশ্লিষ্টদের নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন।কেশবপুৃর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুসরাত জাহান জানান, ভোট কেন্দ্রের সুষ্ঠু পরিবেশ রক্ষায় ১৮জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও আনসার ব্যাটালিয়ন দায়িত্ব পালন করবেন।






Related News

Comments are Closed