Main Menu

নওগাঁয় সাড়ে ৭১ হাজার হেক্টর জমিতে আউশ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন

সোহেল রানা, নওগাঁ জেলা,প্রতিনিধিঃনওগাঁ জেলায় চলতি আউশ মওসুমে ৭১‘ হাজার ৪শ ১৫ হেক্টর জমিতে আউশ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। এই লক্ষ্য পুরণে জেলার কৃষকরা তাঁদের জমিতে আউশ ধান রোপন করতে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত এ জেলায় আউশ ধান লাগানোর শেষ সময়।নওগাঁ কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক ড. রবিয়া নূর আহম্মেদ বলেছেন আউশ চাষের ক্ষেত্রে সরকারী প্রনোদনা পাওয়ায় কৃষকদের মধ্যে আউশ চাষের আগ্রহ যথেষ্ঠ রয়েছে। তিনি জানান এ বছর ৭১ হাজার ১শ হেক্টর জমিতে উন্নত ফলনশীল (উফশী)জাতের এবং ৩১৫ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড জাতের আউশ চাষের লক্ষমাত্রা নির্ধারিত রয়েছে।উপজেলাভিত্তিক আউশ চাষের লক্ষমাত্রা হচ্ছে নওগাঁ সদর উপজেলায় উফশী জাতের ৪ হাজার ২৭৫ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৫ হেক্টরসহ মোট ৪ হাজার ২৮০ হেক্টর, রানীনগর উপজেলায় উফশী জাতের ১ হাজার ৪২৫ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৫ হেক্টরসহ মোট ১ হাজার ৪৩০ হেক্টর, আত্রাই উপজেলায় উফশী জাতের ১ হাজার ৪২০ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৬৫ হেক্টরসহ মোট ১ হাজার ৪৮৫ হেক্টর, বদলগাছি উপজেলায় উফশী জাতের ১ হাজার ৪১৫ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৫ হেক্টরসহ মোট ১ হাজার ৪২০ হেক্টর, মহাদেবপুর উপজেলায় উফশী জাতের ১৫ হাজার ৬৬০ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ২০ হেক্টরসহ মোট ১৫ হাজার ৬৮০ হেক্টর, পতœীতলা উপজেলায় উফশী জাতের ৯ হাজার ২৪০ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ১০ হেক্টরসহ মোট ৯ হাজার ২৫০ হেক্টর, ধামইরহাট উপজেলায় উফশী জাতের ৩ হাজার ৫৫৫ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৫ হেক্টরসহ মোট ৩ হাজার ৫৬০ হেক্টর, সাপাহার উপজেলায় উফশী জাতের ২ হাজার ১৬৫ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৫ হেক্টরসহ মোট ২ হাজার ১৭০ হেক্টর, পোরশা উপজেলায় উফশী জাতের ১ হাজার ৪০ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ৫ হেক্টরসহ মোট ১ হাজার ৪৫ হেক্টর, মান্দা উপজেলায় উফশী জাতের ১৯ হাজার ৫৩০ হেক্টর ও হাইব্রিড জাতের ১৮৫ হেক্টরসহ মোট ১৯ হাজার ৭১৫ হেক্টর এবং নিয়ামতপুর উপজেলায় উফশী জাতের ১১ হাজার ৩৭৫ হেক্টর  ও হাইব্রিড জাতের ৫ হেক্টরসহ মোট ১১ সহাজার ৩৮০ হেক্টর।এদিকে কৃষিভিভাগসুত্রে জানা গেছে জেলার ১০ হাজার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মধ্যে ৭৭ লক্ষ টাকা মুরে‌্যর কৃষি প্রনোদনা প্রদান করার পরিকল্পনা রয়েছে। প্রনোদান হিসেবে প্রত্যেক কৃষককে ১ বিঘা করে জমির বিপরীতে এই প্রনোদান দেয়া হবে। প্রনোদান হিসেবে প্রতি কৃষককে ৩শ টাকা মুল্যের ৫ রেকজি করে বীজ, ৩২০ টাকা মুল্যের ২০ কেজি করে ডিএপি সার এবং ১৫০ টাকা মুল্যের ১০ কেজি করে এমওপি সার বিনামুল্যে দেয়া হবে।






Related News

Comments are Closed