Main Menu

মতলব উত্তরে টাকা ভাগাভাগি নিয়ে কাজী মিজানের নেতৃত্বাধীন দু’গ্রুপের মাঝে সংঘর্ষে আহত ৫

বিশেষ প্রতিবেদক :চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে চাঁদা উত্তোলনের টাকা ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ৫ আহত হন। রবিবার (৭ জুন) সকালে উপজেলার কলাকান্দা ইউনিয়নের দক্ষিণ দশানী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।জানা যায়, মতলব উত্তর উপজেলার কলাকান্দা ইউনিয়নের লেদু ছৈয়ালের ছেলে মো. আরিফ ও সিরাজ ভূঁইয়া, লিটন ভূঁইয়া ও শাহজাহান ভূঁইয়ার নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে মেঘনা নদী থেকে বিভিন্ন ট্রলার ও মাছ ধরার ট্রলার থেকে প্রতিদিন ২০০ টাকা থেকে ২৫০ টাকা উত্তোলন করে আসছে উভয় গ্রুপের ২০-২৫ জনের সিন্ডিকেট দল। উভয় গ্রুপের মদদদাতা কথিত আ’লীগ নেতা বালু খেকো কাজী মিজান।শনিবার রাতে এ সিন্ডিকেটের আদায়কৃত চাঁদা উত্তোলনের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দ্বন্ধের সৃষ্টি হয়। পরদিন রবিবার সাড়ে ১২টার সময়ে দশানী বেড়িবাঁধে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র, লাঠিসোটা নিয়ে একে অপরের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর আহতদের মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নেওয়া হয়।সংঘর্ষের ঘটনায় আরিফ গ্রুপের মহসিন বেপারী (৩৫), রিফাত বেপারী (২৮), সজিব (২৮), নাজমুল খান (২৮), সিরাজ গ্রুপের শাহজাহান ভূঁইয়া (৪০) মারাত্মকভাবে আহত হয়।আহত মহসিন বেপারী জানান, দীর্ঘদিন থেকে সিরাজ ভূঁইয়া, লিটন ভূঁইয়া, শাহজাহান ভূঁইয়া ও সামাদ আলীর নেতৃত্বে অধৈভাবে মেঘনা নদী থেকে মাছ ধরার ট্রলার থেকে চাঁদা উত্তোলন করে আসছে। আমরা তার প্রতিবাদ করতে গেলে তারা সশস্ত্র অবস্থায় আমাদের উপর ঝাঁপিয়ে পরে। আমরা সকলেই কাজী মিজানের লোক।এ ঘটনায় মতলব উত্তর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।জানাযায়, মতলব উত্তরের বেড়িবাঁধ সংলগ্ন ইউনিয়ন সমূহের মধ্যে ফরাজীকান্দি, জহিরাবাদ, এলখলাছপুর, মোহনপুর, কলাকান্দা ও ষাটনল উল্লেখ্যযোগ্য। উপরোক্ত ইউনিয়নের নদী পথে যতো অবৈধ ব্যবসা সকল কিছু নিয়ন্ত্রন করে কাজী মিজান।






Related News

Comments are Closed