Main Menu

ত্রান নিতে এসে কাউন্সিলর শরীফের থাপ্পরে কান ফাটলো দিনমজুরের

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) এর  ৫১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ শরীফুর রহমানের বিরুদ্ধে  ত্রান প্রার্থীকে  জনসম্মুখে মারধোর  করার অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। 

শুক্রবার বিকেল ৫ টার দিকে জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার সামগ্রী বিতরণকালে শরীফুর রহমানের নিজ বাড়ীর সামনে জনসম্মুখে এই ঘটনাটি ঘটে। থাপ্পরের আঘাতে দিনমজুর মোস্তাফার  কান থেকে রক্ত বের হচ্ছিল।পরে রক্তাক্ত মোস্তফাকে কাউন্সিলরের লোকজন টাকা দিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন।কিন্তু  মোস্তফার স্ত্রীর আহাজারীতে রাস্তার পথচারীরা জড়ো হয়ে যায়।এতে কাউন্সিলর বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ে। আহত মোস্তফা কে টাকা দিয়ে সেখান থেকে রিক্সাযোগে সরিয়ে দেন বলে জানা যায়। পরবর্তীতে সংবাদ কর্মীরা তথ্য নিতে গেলে তাদের সাথেও খারাপ আচরন করেন কাউন্সিলর শরিফুর রহমান।

ঘটনার প্রত্যেক্ষদর্শী একজন জানান, আমরা প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী নিতে১৩ নং সেক্টর কল্যাণ সমিতির পশ্চিমপাশে কাউন্সিলের  বাড়ীর সামনে  লাইনে দাঁড়াই। সেখানে উপস্থিত হয় হয়ঠাকুরগাঁও জেলায় দিনমজুর মোস্তফা (৪০) সে বর্তমানে  টঙ্গীর বৌ-বাজার এলাকায় বসবাস করে।

জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার সামগ্রী বিতরণকালে এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। কাউন্সিলরের হাতের থাপ্পরে দিনমজুরের কান থেকে বের হচ্ছিল রক্ত। সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে, পাশে বসে তার স্ত্রীর আহাজারীতে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসে। ঘটনার প্রত্যেক্ষদর্শী একজন জানান, আমরা প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী নিতে তার বাড়ীর সামনে ১৩ নং সেক্টর কল্যাণ সমিতির পশ্চিমপাশে লাইনে দাঁড়াই। সেখানে উপস্থিত হয় টঙ্গী বৌ-বাজারের দিনমজুর মোস্তফা (৪০) তার বাড়ী ঠাকুরগাঁও।বেঁচে থাকার তাগিদে টঙ্গী এলাকায় দিনমজুরের কাজ করে মোস্তফা। স্ত্রী ও পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করে আসছে। করোনা মহামারীতে যখন সব আয় রোজগার বন্ধ তখন পরিবারের কথা চিন্তা করে মানুষের দ্বারে দ্বারে হাতপাতে মোস্তফা। তারই পরিপ্রেক্ষিতে লোক মুখে শুনতে পায় উত্তরা ৫১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শরীফুর রহমান বড় মনের মানুষ, তার কাছে গেলে কাউকে খালি হাতে ফিরায় না।তাই বিকাল বেলা তার বাসার সামনে মোস্তফা তার স্ত্রীকে নিয়ে কিছু ত্রাণের আশায় পৌঁছায়। কাউন্সিলর শরীফুর রহমানের সাথে রাস্তায় দেখা হলে কিছু ত্রাণ চাইলে সে জিজ্ঞাসা করে তোমরা কোন এলাকায় থাক? মোস্তফা বলেন টঙ্গী বৌ-বাজারে থাকি। কাউন্সিলর শরীফুর রহমানের তরফ থেকে স্পষ্ট জানানো হয়, আমার এলাকা ছাড়া আমার ভোটার ছাড়া কাউকে ত্রাণ দিব না। কিন্তু মোস্তফা নাছর বান্দা ত্রাণ ছাড়া যাবে না বললে এবং চিৎকার চেচামেচি করলে কাউন্সিলর শরীফুর রহমান এবং তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে মোস্তফাকে মারধর করে।এতে করে মোস্তফার ডান কানের পর্দা ফেটে রক্ত বের হতে থাকে এবং সে রাস্তায় লুটিয়ে পড়ে গোঙরাতে থাকে। সাংবাদিকরা ছবি তুলতে গেলে কাউন্সিলর শরীফের লোকজন হাত দিয়ে ক্যামেরার সামনে প্রতিবন্ধগতা সৃষ্টি করার চেষ্টা করে এবং ক্ষিপ্ত হয়।

 এ সময় কাউন্সিলর শরীফের লোকজন দ্রুত এসে মোস্তফা এবং তার স্ত্রীকে একটি রিক্সায় করে লোক চক্ষুর আড়ালে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে কাউন্সিলর শরীফুর রহমানের লোকজন দৌঁড়ে এসে সাংবাদিক কর্মীদের সংবাদ প্রচার করতে বারন করেন। 






Related News

Comments are Closed