Main Menu

সিদ্ধিরগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার। ।

সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়নগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জের কদমতলী খালার বাসা থেকে মোঃ তায়েব (১৩) নামে এক মাদ্রাসার ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার বিকালে কদমতলী ১০তলা বিল্ডিং এর ৯তলায়। সন্ধায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ দরজা ভেঙ্গে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। আজ শনিবার দুপুরে লাশের ময়নাতদন্ত (পোস্টমর্টেম) শেষে আদমজী কবরস্থানে দাফন করা হয়। খালু জানায় মোবাইলে গেমস খেলা নিয়ে খালাত ভাইয়ের সাথে অভিমান করে তৈয়ব নিজেই এঘটনা ঘটিয়েছে। তৈয়ব ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার একটি মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র। সে ২৬ পারা কুরআন মুখস্ত করে ছিল। করোনার কারনে মাদ্রাসা বন্ধ থাকায় সে খালার বাসায় বেড়াতে আসে। জানা যায়, কদমতলীর মাইক্রোবাসের ড্রাইভার মিনাল শেখের ভাড়া বাসায় বেড়াতে আসে মাদ্রাসার ছাত্র তৈয়ব। সে ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার এক মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র। ২৬ পাড়া কুরআন হেফজ করা ছাত্র তৈয়ব করোনার কারনে খালার বাসায় বেড়াতে আসে। তৈয়বের মার সাথে তার বাবার ছোট বেলায় ডির্ভোস হয়ে যায়। বাবা অন্যত্র বিয়ে করার পরে মারও আরেক জনের সাথে বিয়ে হয়। তৈয়বকে তার খালা ৯ মাস বয়স থেকে লালন পালন করছে। বড় হলে ওর বাবা মোহাম্মদপুরের এক মাদ্রাসায় হেফজ বিভাগে ভর্তি করিয়ে দেয়। খালার কদমতলীর বাসায় শুক্রবার বিকালে ছোট খালাত ভাইয়ের সাথে মোবাইল গেমস খেলা নিয়ে অভিমান হয়। খালু মিনাল শেখ জানায়, তৈয়ব বারান্দায় একটি বেঞ্চে মাঝে মাঝে বসে থাকত। বিকালে আছর নামাজ পড়ে ওর খোঁজ করি। দেখি বারান্দা থেকে দরজা বন্ধ। অনেক ডাকা ডাকি করি । দরজাও ভাংগতে পারছিলাম না। পরে অন্য বিল্ডিং থেকে দেখা যায় গামছা পেঁচানো রেলিংয়ের সাথে তৈয়ব ঝুলে আছে। থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে দরজা ভেঙ্গে লাশ উদ্ধার করে । খবর পেয়ে ওর মা আসে। আজ শনিবার দুপুরে ময়নাতদন্ত (পোস্টমর্টেম) শেষে আদমজী কবর স্থানে দাফন করা হয়। ওর বাবা খবর পেয়েও মোহাম্মদপুর থেকে আসতে পারে নাই লকডাউনের কারনে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এস আই রফিক উদদোলা জানায়, খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করি। পােস্টমর্টেম করা হযেছে। ধারনা করা হচ্ছে মোবাইলে গেমস খেলা নিয়ে খালাত ভাইয়ের সাথে রাগ অভিমান করে ঘটনাটি ঘটিয়েছে।






Related News

Comments are Closed