Main Menu

মুজিবনগর সরকারের সদস্যদের প্রতি বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের শ্রদ্ধা

.হাফিজুল ইসলাম লস্কর, সিলেট : আজ শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলায় (বর্তমান নাম মুজিবনগর) শপথ গ্রহণ করেছিল বাংলাদেশের প্রথম সরকার ‘মুজিবনগর সরকার’। মুজিবনগর দিবসের সিলেট জেলা বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম (ইউকে) এক আলোচনা সভা আয়োজন করেছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারনে পরিস্থিতি জটিল আকার ধারন করায় সেই আলোচনা সভা স্থগিত করা হয়েছে এবং আলোচনা সভার পরিবর্তে বিবৃতি প্রদান করা হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে মুজিবনগর সরকারের সকল সদস্যের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন ও দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম (ইউকে) সিলেট জেলার নেতৃবৃন্দ বলেন, স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে সবচেয়ে বেশি কার্যকরী ও সুদৃরপ্রসারী সাংবিধানিক পদক্ষেপ ছিল মুজিবনগর সরকার গঠন এবং প্রাতিষ্ঠানিকভাবে মন্ত্রিসভার শপথ অনুষ্ঠান আয়োজন করে বিশ্বব্যাপী প্রচারের ব্যবস্থা করা। এর ফলে বাঙালীদের সদ্য শুরু হওয়া সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ লাভ করে বিশাল ব্যাপকতা এবং শুরু হয় বিশ্বব্যাপী আমাদের স্বপক্ষে জনসমর্থন অর্জনে ব্যাপক সাড়া।
প্রকৃতপক্ষে ১৯৭০ সালের জাতীয় নির্বাচনে বিজয়ী দলের নেতাদের দ্বারা আনুষ্ঠানিকভাবে মুজিবনগর সরকার গঠন করাটা ছিল স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার স্বপক্ষে বিশ্বব্যাপী জনমত গঠনে একটা অতীব গুরুত্বপূর্ণ ও উল্লেখযোগ্য প্রক্রিয়া যা একদিকে যেমন স্বাধীনতা অর্জনের জন্য সরকার প্রতিষ্ঠা থেকে শুরু করে অন্যান্য রাজনৈতিক তৎপরতার স্বপক্ষের কর্মকান্ড বিশ্ব মিডিয়াতে ব্যাপক প্রচারণা, অন্যদিকে পাকিসত্মানী বাহিনী কর্তৃক নিরীহ নিরস্ত্র দেশবাসীদের ওপর আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অমানুষিকভাবে হামলা চালিয়ে হাজার হাজার লোককে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনা ব্যাপক প্রচারণা ও বিশ্বব্যাপী নিন্দার জোয়ার ও স্বাধীনতার পক্ষে বিশ্বজনমত তৈরী করা।
মুজিবনগর সরকার গঠন করা ছিল একটা বাসত্মবসম্মত ও সময় উপযোগী সাংবিধানিক পদক্ষেপ। এটা আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম একটা উজ্জ্বল ঘটনা এবং জাতীয় জীবনের একটা বিশেষ গুরম্নত্বপূর্ণ দিন। ২৫ মার্চ রাতের অন্ধকারে পাকবাহিনীর জ্বালাও, পোড়াও, হত্যা ও লুটপাটের পৈশাচিক কর্মকান্ড শুরু করার পর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং স্বাধীনতার স্বপক্ষের লোকেরা আত্মরক্ষার জন্য আত্মগোপন করতে বাধ্য হয় দেশের এখানে সেখানে। এমনি পরিস্থিতিতে স্বাধীনতার স্বপক্ষের সবাইকে একত্রিত করে একটা সরকার গঠন করা এবং পাকিস্থানের মতো একটি শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে অল্প সময়ের মধ্যে বিজয় ছিনিয়ে আনা ছিল সত্যিই একটা কঠিন কাজ। আর এই সুকঠিন কাজটা সুচারুভাবে সুসম্পন্ন করে ঈপ্সিত লক্ষ্য অর্জন করতে সমর্থ হয়েছিল মুজিবনগর সরকার। তাই আমরা মুজিবনগর সরকারের সকল সদস্যের প্রতি জানাই স্বশ্রদ্ধচিত্তে গভীর শ্রদ্ধা।






Related News

Comments are Closed