Main Menu

শেখ মোরতোজা আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা পর্ষদের শিক্ষানুরাগী পদটি নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা

সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় শেখ মোরতোজা আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা পর্ষদের শিক্ষানুরাগী পদটি নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে একটি স্বার্থান্বেষী মহল। কমিটি অনুমোদনের পর অনুমোদনকৃত সদস্যদের স্বক্ষরে শিক্ষানুরাগী হিসেবে স্কুলের আজীবন দাতা সদস্য আলহাজ্ব ফারুকুল ইসলামের নাম দেওয়া হয়। শিক্ষানুরাগী হিসেবে আলহাজ্ব ফারুকুল ইসলামের নাম দেওয়ায় একটি মহল স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ জহিরুল হকের নামে বিভিন্ন কুৎসা রটাচ্ছে। এ ব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও ব্যবস্থাপনা পর্ষদের সদস্য সচিব মোঃ জহিরুল হক বলেন, বিধি মোতাবেক আলহাজ্ব ফারুকুল ইসলামকে শিক্ষানুরাগী বানানো হয়েছে।
উল্যেখ, গত ২৬’সেপ্টেম্বর ১৯ইং তারিখে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নিবার্হী অফিসার এ কমিটি অনুমোদন দেন। সানারপাড় শেখ মোরতোজা আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা পর্ষদের নির্বাচনের কথা থাকলেও অভিভাবকদের সম্মতিতে বাছাই কৃতক ব্যবস্থাপনা পর্ষদ নির্ধারন করা হয়। বাছাইয়ে ব্যবস্থাপনা পর্ষদের সভাপতি মোঃ সামসুল আলম ও পদাধিকার বলে সদস্য সচিব(প্রধান শিক্ষক) মোঃ জহিরুল হক। অন্যান্য বিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা পর্ষদের সদস্যরা হলো মোঃ জাকির হোসেন, আব্দুল খালেক, রবিউল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম, সংরিক্ষত মহিলা সদস্য তাছলিমা আক্তার মিতা, শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব ফারুকুল ইসলাম, দাতা সদস্য আলহাজ্ব রওশন আরা বেগম, সংরিক্ষত মহিলা প্রতিনিধি দিলরুবা খাতুন, সাধারন শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ আবু তাহের ও আছমা আক্তার। গত ২৬’সেপ্টেম্বর ১৯ইং তারিখে মাধ্যমিক অফিসার এসএম আবু তালেব ও নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নিবার্হী অফিসার নাহিদা বারিক এ কমিটি অনুমোদন দেন। উল্যেখ্য সানারপাড় শেখ মোরতোজা আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষানুরাগী হিসেবে আলহাজ্ব ফারুকুল ইসলামকে ব্যবস্থাপনা পর্ষদের সদস্য জাকির হোসেন প্রস্তাব করলে পর্ষদের সদস্য রবিউল ইসলাম তা সমর্থন করেন। ব্যবস্থাপনা পর্ষদের সভাপতিসহ অন্যান্য সদস্যদের ভোটে তাকে শিক্ষানুরাগী হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।####






Related News

Comments are Closed