Main Menu

সিদ্ধিরগঞ্জের ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ

সড়ক পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়ে ধর্মঘট পালন করছে পরিবহন শ্রমিক ও চালকরা।
গতকাল বুধবার সকাল ৬’টা থেকে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ আশপাশের সড়কগুলোতে পরিবহন চালক ও শ্রমিকরা অবস্থান নিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। এতে করে চরম দূর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ ও পরীক্ষার্থীরা।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, গতকাল সকাল ৬’টা থেকে সিদ্ধিরগঞ্জের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ সংযোগ সড়কে গাড়ী রেখে যানচলাচল বন্ধ করে দেয় পরিবহন শ্রমিক ও চালকরা। সড়কে যানবাহন চলাচল করতে দেখলেই তারা যানবাহন থেকে চালকদের নামিয়ে নিচ্ছে। পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটের কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ। গণপরিবহনের চলাচল বন্ধ থাকায় ঝুঁকি নিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে ভ্যানে করে গন্তব্যস্থলে রওনা হতে দেখা গেছে। এদিকে পরিবহন ধর্মঘটে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তির শিকার হতে হয় পরীক্ষার্থী ও অফিসগামী লোকজনদের। পরিবহন সংকট থাকায় পিইসি পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা বিপাকে পরেছেন। অনেক পরীক্ষার্থীকে বাধ্য হয়ে ভ্যানে করে পায়ে হেঁটে পরীক্ষা কেন্দ্রে যেতে দেখা যায়। গতকাল বুধবার সাইনবোর্ড, শিমরাইল মোড় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সকল টিকেট কাউন্টারগুলো বন্ধ। পরিবহন চালক ও শ্রমিকরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দুই পাশে গাড়িগুলোকে এলোমেলো করে রেখে শ্রমিক অবরোধ করে আন্দোলন করছে। সড়কে কোনো প্রকার যান চলাচল করতে দেখা গেলে তা রুখে দিচ্ছে। এদিকে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে ঘটনাস্থলে উপস্থিত আছেন নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশ ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ। পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রসঙ্গে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি(সার্বিক) কামরুল ফারুক বলেন, আমাদের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলামসহ আমরা সার্বক্ষনিক রাস্তায় ছিলাম। আমাদের এলাকায় কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এদিকে ধর্মঘটের বিষয়টি নিশ্চিত করে সাইনবোর্ড এলাকায় কর্তব্যরত ট্রাফিক পরিদর্শক মো. জিয়াউল করিম জানান, গতকাল বুধবার সকাল সোয়া ৬’টা থেকে কিছু পরিবহন শ্রমিক রাস্তায় এসে অবস্থান নেয় এবং সড়ক অবরোধ করে মহাসড়কের উভয়পাশ বন্ধ করে দেয়। নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক মোল্লা তাসলিম হোসেন জানান, নতুন পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটের কারণে সকাল থেকে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঢাকা থেকে কোনো গাড়ি আসতে দেয়া হচ্ছে না এবং ঢুকতেও দিচ্ছেন না পরিবহন শ্রমিকরা পুলিশ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। কোথাও ভাঙচুর বা অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।######






Related News

Comments are Closed