Main Menu

৬০ বছরের পুরানো রাস্তা বন্ধ করল প্রভাবশালী পরিবার ।


স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ৬০ বছরের পুরানো রাস্তা বন্ধ করে ৪০টি পরিবারের যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে প্রভাবশালী এক পরিবার। পুরানো রাস্তার মুখে প্রাচীর ও গেট নির্মান করে চরম অমানিবক আর ওদ্ধ্যত্তপুর্ন কাজ করেছেন ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার সুয়াদী গ্রামের নাসির উদ্দীন। স্থানিয়রা অভিযোগ করেছেন, রাস্তাটি মালিকানা জমির উপর দিয়ে গেছে। ওই স্থানে এক দাগে ২৮ শতক জমি ছিল। জমির মালিক রাস্তার জন্য তিন শতক জমি রেখে ২৫ শতক বিক্রি করে দেন। ক্রেতা নাসির উদ্দিন ও তার ভাইয়েরা ২৫ শতক জমি কিনে ২৮ শতক গোপনে রেকর্ড করে নিয়েছেন। অবশ্য এই পথ উন্মুক্ত করে দেওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই আদালত থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রভাবশালী ওই পরিবারের পক্ষ থেকে সেই নির্দশ মানা হয়নি, তারা এই নির্দেশের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন। সুয়াদী গ্রামের বিল পাড়ার বাসিন্দা মুরাদ আলী জানান, ৬০ বছরের অধিক এই পাড়ার মানুষগুলো এই রাস্তায় চলাচল করেন। তারা নিজেরা চলাচলের প্রয়োজনে রাস্তার জন্য জমি রেখে বাড়িঘর নির্মান করেছেন। পশ্চিম পাশের পিচ রাস্তার সঙ্গের জায়গাটি ছিল ওই গ্রামের সামছুল ইসলামের। সামছুল ১৯৮৩ সালে নবীছ উদ্দিনের কাছে ২৫ শতক জমি বিক্রি করেন। রাস্তা থাকায় তিনি ৩ শতক জমি বিক্রি করেননি। নবীছ উদ্দিন জীবিত থাকা কালে নিজেও রাস্তা দখল করেনি। কিন্তু তার ছেলেরা রাস্তার জায়গা সহ ২৮ শতক জমিই প্রাচীর দিয়েছেন। যে স্থানে রাস্তা ছিল তার একপ্রান্তে প্রাচীর আরেক প্রান্তে গেট নির্মান করেছেন। যার কারনে গোটা রাস্তায় বন্ধ হয়ে গেছে। গ্রামবাসি জামাত আলী জানান, এ বিষয়ে তারা প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরে যোগাযোগ করেছেন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে একদফা রাস্তা খুলে দেওয়ার জন্য নির্দেশও দিয়েছিলেন। জানা গেছে, কোটচাঁদপুর সহকারী জজ আদালতের বিচারক গত ২৯ এপ্রিল জনগনের চলাচলের জন্য রাস্তার মুখে স্থাপন করা গেটটি খুলে ফেলার নির্দেশ দেন। কিন্তু আজো তারা গেটটি সরিয়ে নেননি। বিবাদী পক্ষের আইনজীবী মাসুদ কামাল জানান, তারা এই আদেশ না মেনে এর বিরুদ্ধে আদালতে আপিল করেছেন। কিন্তু পূর্বের আদেশ এখনও বাতিল হয়নি। এ বিষয়ে প্রাচীর নির্মাণকারী নাসির উদ্দিন জানান, ২৮ শতক জমিই তাদের। তারা নিজেদের জমির উপর দিয়ে কাউকে যেতে দিতে পারেন না। তাছাড়া প্রাচীরের বাইরে উত্তর পাশ দিয়ে তারা চলাচল করতে পারেন। জমির মুল মালিক সামছুল ইসলাম জানান, তার বয়স ৭২ বছর। তার জীবনদশায় এখানে রাস্তা দেখছেন। তার নিজের জমির উপর দিয়ে ওই পাড়ার মানুষগুলো যাতাযাত করতো। যে কারনে তিনি ২৫ শতক জমি বিক্রি করেন, ৩ শতক ফেলে রাখেন। কিন্তু নাসির উদ্দিনের বাবা নবীছ উদ্দিন আরএস রেকর্ডে গোপনে ২৮ শতকই রেকর্ড করেছেন। এই রেকর্ডের শক্তিতে তারা রাস্তা বন্ধ করেছেন। এটা অন্যায় বলে তিনি উল্লেখ করেন। এ বিষয়ে সাব্দালপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস.আই নিরব হোসেন জানান, তার পূর্বে যে কর্মকর্তা এখানে দায়িত্বে ছিলেন তিনি রাস্তা বন্ধ করা নিয়ে যেন কোনো বিশৃংখলা না হয় তার জন্য উভয় পক্ষকে নোটিশ দিয়েছিলেন বলে শুনেছেন। এর বেশি কিছু তিনি জানেন না।






Related News

Comments are Closed