Main Menu

আদমদীঘিতে শিশুকন্যার বিষপানে মৃত্যু নিয়ে রহস্য


মো: মোমিন খান, আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার আদমদীঘিতে ছোঁয়া (১২) নামের ৫ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীর বিষপানে মৃত্যু হয়েছে। তাকে শারীরিক নির্যাতনের পর বিষপানে বাধ্য হরা হয়েছে নাকি ক্ষোভে বিষপান করে মারা গেছে এ নিয়ে নানা রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। রবিবার সকালে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুকন্যা ছোঁয়ার মৃত্যু হয়। পুলিশ দুপুরে লাশের ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের নিকট মরদেহ হস্তান্তর করেন। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউ.ডি মামলা হয়েছে।
জানাযায়, আদমদীঘির কুন্দগ্রাম ইউপির হারভাঙ্গা গ্রামের প্রবাসি আল আমিনের শিশুকন্যা ছোঁয়া কুন্দগ্রাম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনীর ছাত্রী। গত ২৪ মে রাতে বাড়িতে পারিবারিক কারনে ছোঁয়াকে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করা হয়। পরদিন গত শনিবার বেলা ১১টায় শারীরিক নির্যাতনে শিকার ওই শিশু ছোঁয়া বিষপান করে মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে মূমূর্ষ অবস্থায় প্রথমে দুপচাঁচিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসাপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার সকাল ১০টায় ছোঁয়া মারা যায়। নিহত ছোঁয়ার মা আফরিন ও নানা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আফতাব হোসেন দাবী করেন ছোঁয়াকে তার চাচা মামুন শারীরিক নির্যাতনের পর বিষপানে বাধ্য করেছে। তবে নিহতের চাচা মামুন সাংবাদিকদের জানায়, কিছুটা অবাধ্য থাকায় ছোঁয়াকে সামান্য শাসন করা হয়েছে। বিষপান করবে এটা ভাবিনি। কুন্দগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান এসএম বেলাল হোসেন জানান, শিশুটিকে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে বলে শুনেছি। আদমদীঘি থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, বিষয়টি শোনার পর সেখানে অফিসার পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করা হচ্ছে।






Related News

Comments are Closed