Main Menu

টুঙ্গিপাড়ায় নিজের সম্পত্তি ব্যাংকে বন্ধক রেখে চরম হতশায় এনজিও কর্মী।


গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় সরল বিশ্বাসে নিজের কোটি টাকার স্থাবর সম্পত্তি ব্যাংকের কাছে বন্ধক রেখে ভাটা মালিককে ঋন পাইয়ে দিয়ে চরম হতাশার দিন কাটছে পক্ষাঘাতগ্রস্থ এনজিও কর্মী আবুল হোসেন নান্নু।
জীবনের শেষ সম্বল টুকু হাতছাড়া হওয়ার আশংকায় এখন সে পাগল প্রায়। নিজের ভুল বুঝতে পেরে ব্যাংকের কাছ থেকে তার বন্ধক দেওয়া সম্পত্তি উদ্ধারে দৌড়ঝাপ করছেন তিনি।
ভুক্তভোগি আবুল হোসেন নান্নু সাংবাদিকদের বলেন, বিগত ২০১৭ সালের ২০ ডিসেম্বর সুসম্পর্কের কারনে সরল বিশ্বাসে ঋন পাইয়ে দিতে তিনি তার কোটি টাকা মূল্যের টুঙ্গিপাড়ার শ্রীরামকান্দি মৌজায় স্থপনাসহ ১০ শতাংশ জমি থার্ড পার্টি মর্টগেজ হিসেবে রানা ব্রিকসের অনুকুলে রূপালী ব্যাংক, টুঙ্গিপাড়া শাখার কাছে বন্ধক রাখেন। এতে ব্যাংক রানা ব্রিকসকে ৪৫ লক্ষ ঋণ অনুমোদন দেয়। এখন তিনি তার ভুল বুঝতে পেরেছেন। তাই তিনি তার সম্পত্তি ব্যাংকের কাছে বন্ধক রাখতে আগ্রহী নন।
টুঙ্গিপাড়ার রানা ব্রিকস্রে অন্যতম সত্ত্বাধিকারী মোজাহিদুর রহমান রানা সত্যতা স্বীকার করে বলেন, স্ব ইচ্ছায় আবুল হোসেন নান্নু ব্যাংকের কাছে তার সম্পত্তি বন্ধক দিয়েছিলেন। এখন তিনি তা প্রত্যাহার করলে ব্যবসায়িক ভাবে আমি ক্ষতির সম্মুখীন হবো।
রূপালী ব্যাংক টুঙ্গিপাড়া শাখার ব্যবস্থাপক ওহিদুল ইসলাম বলেন, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ঋনের মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। বন্ধকদাতা প্রত্যাহার করতে চাইলে তখন রিডামসন করে তার সম্পত্তি ফেরত দেওয়া হবে।






Related News

Comments are Closed