Main Menu

ফেসবুক ভেঙে তিনটি কোম্পানি!

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ভেঙে তিনটি পৃথক কোম্পানি করার প্রস্তাব দিয়েছেন এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ক্রিস হিউজ। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক নিবন্ধে এ প্রস্তাব দেন হিউজ। তবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তার প্রস্তাবে রাজি নয়।

ওই নিবন্ধে হিউস লিখেছেন, এখনই ফেসবুক ভেঙে দেয়া উচিৎ নিয়ন্ত্রক সংস্থার। তার মতে, জাকারবার্গ বিশ্বে একচ্ছত্র ক্ষমতাশালী হয়ে উঠেছেন। তার মতো ক্ষমতা কোনো বেসরকারি কোম্পানি তো দূরের কথা কোনো সরকারেরও নেই।

যুক্তরাজ্যের বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতারা দেশটির বিচার বিভাগের কাছে ফেসবুকের বিরুদ্ধে ‘অ্যান্টি-ট্রাস্ট তদন্ত’ চালানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

জনপ্রিয়তার তুঙ্গে থাকলেও ফেসবুক বহুবার নানা বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। এর মধ্যে আছে- গ্রাহকের তথ্য চুরি, ভুয়া তথ্য প্রচার, নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার, তথ্য বিনিময় করার চর্চা, ঘৃণিত বক্তব্য ও ভুয়া খবর ছড়ানো ঠেকাতে ব্যর্থতার অভিযোগ।

হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সময় ২০০৪ সালে ক্রিস হিউজসহ কয়েকজন বন্ধুর যৌথ উদ্যোগে মার্ক জাকারবার্গ ফেসবুক প্রতিষ্ঠা করেন।

ফেসবুকের একক আধিপত্যের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন হিউজ। তিনি লিখেছেন, ‘মার্ক (জাকারবার্গ) খুব ভালো আর সদয় মানুষ। কিন্তু আমার ক্ষোভ অন্য জায়গায়। লাভের লোভে পড়ে সে নিরাপত্তা বিষয়টি এবং ক্লিকের লোভে সহনশীলতাকে বিসর্জন দিয়েছে। আমি আরও হতাশ মার্ক তার আশপাশে এমন মানুষদের রেখেছে, যারা তাকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে না।’

হিউজের এমন প্রস্তাবের পর ফেসবুক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘আমরা স্বীকার করছি সফলতার সঙ্গে দায়িত্ববোধের বিষয়টি গ্রহণ করা উচিৎ। তাই বলে যুক্তরাষ্ট্রের এরকম একটি সফল প্রতিষ্ঠানকে ভেঙে দায়িত্বশীলতা চাপানোর প্রস্তাবটি অযৌক্তিক।’






Related News

Comments are Closed