Main Menu

বৃষ্টি রানী চৌধুরীর হত্যার দ্রুত বিচার ও দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, নারায়ণগঞ্জর জেলার বিবৃতি প্রদান ও তদন্ত

: বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, নারায়ণগঞ্জ জেলার একটি তদন্ত টীম বৃষ্টি রানী চৌধুরীর হত্যাকান্ডের বিষয়টি তদন্তের জন্য অদ্য ২৩ এপ্রিল ২০১৯ তারিখ দুপুর ১২টায় টানবাজার থানা পুকুর পাড়ে বৃষ্টির মেসো নির্মল সাহার বাসায় যান। সেখানে বৃষ্টির বাবা-মা, ভাইসহ অন্যান্য আত্বীয়-স্বজন অবস্থান করছিলেন। বাবা-মার মর্মস্পর্শী বর্ননা এক আবেগময় পরিবেশের সৃষ্টি করে। বৃষ্টির আট মাসের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।
গত ১২ এপ্রিল ২০১৯ তারিখ সকাল ১১টা ১৭মিনিটে বৃষ্টি মোবাইলে কল করে তার মাকে বলে- শ^শুড়-শ^াশুড়ী-স্বামী-ননাস তাকে নানা অজুহাতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করছে। আমাকে কোথায় বিয়ে দিয়েছো, নিয়ে যাও ? মা তাকে নববর্ষের পরে নিয়ে আসার কথা বলেন। ঐ দিন দুপুর ১.৩৩মিনিটে বৃষ্টির স্বামী সুদীপ রায় মোবাইলে কল করে বৃষ্টির ভাই মিঠুন চৌধুরীকে(কুমিল্লায়) জানায় যে, আপনার বোন আত্মহত্যা করেছে। বৃষ্টির পিসি শংকরী সাহা সুদীপের পাশের ব্লিডিং-এ থাকেন, তিনি খবর পেয়ে তাদের বাসায় গেলে সুদীপ বলে বৃষ্টি সেন্স হারিয়েছে। শংকরী সাহা বৃষ্টির গায়ে হাত দিয়ে দেখে সে নিথর হয়ে পড়ে আছে। অন্যান্য আত্বীয়-স্বজন এসে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে বৃষ্টিকে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। তিনি বৃষ্টির শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান। পুলিশও প্রাথমিক ভাবে বলেন-এই সিলিং ফ্যানে এত উচুতে সে কোনভাবেই ফাস লাগাতে পারে না। এসব বক্তব্য হতে ষ্পষ্ট বুঝা যায়- তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।
পুলিশ সুদীপ রায় ও তার পিতা সুভাষ চন্দ্র রায়কে আটক করে হাজতে পাঠিয়েছে। মহিলা পরিষদ নেত্রীবৃন্দ বৃষ্টির পরিবারকে গভীর সমবেদনা জানান এবং মামলার বিষয়ে তাদের সর্বাত্বক সহযোগিতার আশ^াস দেন। তাৎক্ষনিকভাবে সাধারন সম্পাদক এডভোকেট হাসিনা পারভীন মামলার সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তা, ওসি, সিভিল সার্জন, আর এম ও, মামলার আইনজীবির সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন। সকলে বিষয়টির সঠিক রিপোর্ট প্রদানের এবং সহযোগিতার আশ^াস দেন।
তদন্ত টীমের সদস্যরা হলেন সভাপতি লক্ষ্মী চক্রবর্তী, সাধারন সম্পাদক এডভোকেট হাসিনা পারভীন, সংগঠন সম্পাদক প্রীতিকণা দাস, প্রোগ্রাম এক্সিকিউটিভ সুজাতা আফরোজ। মহিলা পরিষদ নেত্রীবৃন্দ বৃষ্টি রানী চৌধুরী হত্যার দ্রুত বিচার ও দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীর জোর দাবী জানান যাতে সমাজে আর কোন নারী এমন নির্মমতার শিকার না হয়।






Related News

Comments are Closed