Main Menu

বরিশালে জয়ে শতভাগ আশাবাদী, ভোট দিয়ে সাদিক

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবত সাদিক আবদুল্লাহ। তিনি বলেছেন, জয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী। তারপরও জনগণ যে রায় দেবে তা মেনে নেব।

সোমবার সকালে সরকারি বরিশাল কলেজ কেন্দ্রে ভোট দেয়ার পর সাংবাদিকদের সামনে তিনি এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সোমবার সকাল আটটার দিকে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ভোট কেন্দ্রে যান তিনি। ভোট দেয়ার পর বিজয় সূচক ‘ভি’ চিহ্ন দেখান।

পরে তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, ‘আমি বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ নিশ্চিত। নৌকার বিজয় অবশ্যই হবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলেন, ‘বরিশাল সিটিতে শান্তিপূর্ণ ভোট চলছে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী কোথাও কোনো সমস্যা হয়নি। সবাই উচ্ছ্বাস-উদ্দীপনার মধ্যদিয়েই ভোট কেন্দ্রে যাচ্ছেন, ভোট দিচ্ছেন।’

দলীয় নেতাকর্মী ও সব দলের প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, ‘সবার প্রতি আমার অনুরোধ থাকবে নির্বাচনটা যেন সুষ্ঠু হয়। কেউ যেন সুন্দর পরিবেশ নষ্ট না করে।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ফলাফল যাই হোক আমি মেনে নেবো। সবাই তো আর জিতবে না। একজনই জিতবো। যিনি জিতবে তাকে সহযোগিতা করবো। নগরকে ভালভাবে গড়তে বিজয়ী প্রার্থীকে সবধরনের সহযোগিতা করা হবে।’

বরিশালের সার্বিক নির্বাচনী পরিবেশে স্বস্তি প্রকাশ করে সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, ‘নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের শঙ্কা নেই। আমি মনে করি বরিশালবাসী শান্তিপূর্ণভাবেই ভোট দেবেন। এবং নৌকার প্রার্থীকে জয়ী হবেন।’

বিএনপির প্রার্থীর অভিযোগের বিষয়ে সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, ‘বিএনপির প্রার্থী শুরু থেকেই নির্বাচনকে নিয়ে অযৌক্তিক অভিযোগ করে আসছে। তার অভিযোগের কোনো যুক্তি নেই। নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন অন্য দুই সিটির চেয়ে বরিশাল সিটির নির্বাচনী পরিবেশ অনেক ভাল। সুতরাং নির্বাচন নিয়ে সংশয়ের কোনো কারণ নেই।’

সকাল আটটায় এই সিটিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। চলবে বিকাল চারটা পর্যন্ত। ভোটগ্রহণ শুরুর আগেই নগরীর অনেক কেন্দ্রে আসতে থাকেন ভোটাররা। পুরুষদের পাশাপাশি নারী ভোটারদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো।

বরিশাল নগরীতে সাদিক আবদুল্লাহ ছাড়াও মেয়র পদে আরও ছয়জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন বিএনপি প্রার্থী মজিবর রহমান সরোয়ার, লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টির ইকবাল হোসেন তাপস, হাতপাখায় ইসলামী আন্দোলনের ওবায়দুর রহমান মাহাবুব, মই প্রতীকে বাংলাদেষের সমাজতান্ত্রিক দলের মনীষা চক্রবর্তী, কাস্তে প্রতীকে বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবির আবুল কালাম আজাদ-কাস্তে প্রতীক এবং হরিণ প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী বশির আহমেদ ঝুনু।

বরিশালে সাধারণ ওয়ার্ড ৩০টি আর সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ড ১০টি। এখানে ভোটার দুই লাখ ৪২ হাজার ১৬৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ এক লাখ ২১ হাজার ৪৩৬ জন ও নারী এক লাখ ২০ হাজার ৭৩০ জন। ভোট কেন্দ্র ১২৩টি ও ভোট কক্ষ ৭৫০টি।






Related News

Comments are Closed