Main Menu

সাধারণ সম্পাদক হলেন ওবায়দুল কাদের

_92058827_14711454_1401539656540889_1201749410777313084_oআওয়ামী লীগের নতুন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন ওবায়দুল কাদের। এর আগে অষ্টমবারের মতো বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (২৩ অক্টোবর) আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের কাউন্সিল অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে শেখ হাসিনা সভাপতি ও ওবায়দুল কাদের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

এদিকে বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে ৮১ সদস্যের নতুন কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নির্বাচিত করা হয়েছে। নতুন করে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হয়েছেন নুরুল ইসলাম নাহিদ, কর্নেল (অব.) ফারুক খান, অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান, রমেশ চন্দ্র সেন, পীষুষ কান্তি ভট্টাচার্য ও ড. আব্দুর রাজ্জাক।

সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, কাজী জাফর উল্লাহ ও ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এ পদে বহাল আছেন।

চারটি পদের মধ্যে নতুন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন আব্দুর রহমান। মাহবুব-উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি ও জাহাঙ্গীর কবির নানক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে বহাল রয়েছেন। কোষাধ্যক্ষ পদেও বহাল আছেন এইচ এন আশিকুর রহমান।

দু’দিনব্যাপী জাতীয় সম্মেলনের কাউন্সিল চলছে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সংলগ্ন রমনার ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে।

কাউন্সিলের শেষ পর্বে বর্তমান কমিটি ভেঙে দেন অধিবেশনের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরপর নতুন কার্যনির্বাহী সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু করেন তিন সদস্যের নির্বাচন কমিশন।

প্রথমে সভাপতি পদে শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব করেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী। এরপর অন্য কোনো নাম এ পদে আসেনি।

১৯৮১ সালে শেখ হাসিনা দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত কেউ সভাপতি পদে তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি, এবারও করলেন না। ফলে তাকেই সভাপতি হিসেবে পুনর্নিবাচিত করা হয়েছে।

এরপর সাধারণ সম্পাদক পদে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ও বিদায়ী সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ওবায়দুল কাদেরের নাম প্রস্তাব করেন বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। এ প্রস্তাব সমর্থন করেন বিদায়ী যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক।

সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচনের পর কমিটির বাকি ৭৯ সদস্যকে নির্বাচনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শেখ হাসিনাকে। তিনি ১৯ সদস্যের মধ্যে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পদে ১৪ জন, কোষাধ্যক্ষ ও চারজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করেন। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদাধিকার বলে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য। ফলে সভাপতিমণ্ডলীর তিনটি পদ ফাঁকা রয়েছে।‍






Related News

Comments are Closed