Main Menu

সিদ্ধিরগঞ্জে নারী নির্যাতন মামলায় স্বামী গ্রেফতার

kalerchitro 19.07সিদ্ধিরগঞ্জ: সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধিন মিজমিজি তালতলঅ এলাকায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ মৌসুমী আক্তারকে বর্বর নির্যাতনের দায়ের করা মামলায় স্বামী মোঃ তারেকুল আনোয়ার (৩০) গ্রেফতার। গত শনিবার দিবাগত গভীর রাতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ওমর ফারুক সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালিয়ে মিজমিজি দক্ষিণপাড়া এলাকা থেকে তারেককে গ্রেফতার করে।
জানা গেছে, মিজমিজি দক্ষিণপাড়া এলাকায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ মৌসুমী আক্তারকে (১৯) মাথায় বিদুত্যের শর্ট, প্লাাস দিয়ে হাতের নোখ তুলে ফেলার চেষ্টা, মাররধর ও পরে বিবস্ত্র করে বাড়ী থেকে বের করে দেয় স্বামী ও শশুর বাড়ির লোকজনরা। বর্বর নির্যাতনের শিকার মৌসুমি মানষিক ভারষ্যম্যহীন হয়ে পড়েছে। মৌসুমি মিজমিজি তালতলা এলাকার কাঁচামালের ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলামের মেয়ে।
এ ঘটনায় গত শুক্রবার দুুপুরে মৌসুমীর মা বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি।
পরে জেলা উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে গত শনিবার মামলা নথিভুক্ত করে থানা পুলিশ। মামলা দায়ের করার পর তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ওমর ফারুক সঙ্গীয় ফোর্সসহ গবীর রাতে অভিযান চালিয়ে নির্যাতিত মৌসুমীর স্বামী তারেকুলকে গ্রেফতার করে। মামলার বাদীর অভিযোগ, গত ৬’মাস আগে একই এলাকার মৃত রব মিয়ার ছেলের মোঃ তারেকুল ইসলাম (২৫) এর সাথে মৌসুমিকে বিয়ে দেন। বিয়ের সময় তিনি নগদ স্বর্ণ গয়না ও বিভিন্ন জিনিষসহ ৭০’হাজার টাকা দেন। বিয়ের পর থেকে তারেকুল ইসলাম মৌসুমীকে বাবার বাড়ি থেকে আরো ২’লাখ টাকা ও একটি বাড়ির জন্য মারধর করতো। মেয়ের সুখের চিন্তা করে কয়েকধাপে আরো ৫০/৬০’হাজার টাকা তারেকুলকে দেয়। গত কোরবানীর ঈদের পর মৌসুমি বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসে। পরে গত বুধবার স্বামী তারেকুল মৌসুমিকে নিয়ে যায়। টাকা না নিয়ে যাওয়ায় স্বামী তারেকুল, শাশুরি নুর জাহান (৪৭), ভাসুর সুমন (৩২), জাল মুক্তা (২৫) ও ননাস সেলিনা (৩৫) রাতভর মৌসুমীকে নির্যাতন করে।






Related News

Comments are Closed