Main Menu

কয়েক বছর থেকে উন্নয়ন নেই নবাবগঞ্জ উপজেলা সদরের

নবাবগঞ্জ রোড

এম. জাকারিয়া, নবাবগঞ্জঃ কৃষি, শিক্ষা, বিনোদন এর দিক থেকে নবাবগঞ্জ বাসী এগিয়ে থাকলেও নবাবগঞ্জ উপজেলা সদরের নেই কোন উন্নয়ন। প্রায় ৪৫ হাজার মানুষ বসবাস করে উপজেলা সদরে। উপজেলার সাথে দিনাজপুর, রংপুর এর সংযোগ সড়কের নেই কোন উন্নয়ন। সড়কের রাস্তা একটু পানি হলেই কাঁদা ও পানিতে পরিপূর্ণ হয়। এতে জনসাধারণের যাতায়াতের সমস্যা বিশাল আকার ধারন করে। উপজেলা টি এন্ড টি অফিস হতে দাউদপুর পর্যন্ত নবাবগঞ্জ উপজেলার একমাত্র প্রধান সড়কের বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন ও খানা খন্দরে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। বিশেষ করে নবাবগঞ্জ মডেল সরকারী হাইস্কুল ও নবাবগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় হইতে নবাবগঞ্জ থানা পর্যন্ত সড়কে একটু বৃষ্টি হলেই পানিতে ভরে যায়। তাছাড়া নবাবগঞ্জ মহিলা কলেজ মোড়ের তো বেহাল দশা। এমনিতেই রাস্তা প্রশস্ত না হওয়ায় যানবাহন চলাচলে সমস্যার সৃষ্টি হয় তার উপর আবার রাস্তার ভাঙ্গন।

Bridgeনবাবগঞ্জকে বিভক্ত করেছে মরা করতোয়া নদী। করতোয়া নদীর ওপারে ইউনিয়ন হচ্ছে জয়পুর, কুশদহ, বিনোদনগর এর কিছু অংশ ও গোলাপগঞ্জের কিছু অংশ । আর এপারে ভাদুরিয়া, পুটিমারা, মাহমুদপুর, গোলাপগঞ্জ ও বিনোদনগর এর অংশ। নবাবগঞ্জ উপজেলার যাতাযাতের মাধ্যম নবাবগঞ্জ ব্রিজ প্রায় ১০০ বছর আগে নির্মিত এই ব্রিজ ঝুকিপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে। ব্রিজ এর পিলার সহ উপরের অংশে ফাঁটল ধরেছে। যে কোন সময় ব্রিজটি ভেঙ্গে গেলে জনগণের প্রাণহানী ঘটতে পারে।

bridge-2

এ ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন নবাবগঞ্জ টু রংপুর রোডে প্রায় ২৫টি বাস যাতায়াত করে। তাছাড়া এই কৃষি নির্ভর উপজেলার সকল কৃষি পণ্য এই ব্রিজ দিয়ে দেশের রাজধানী সহ বিভিন্ন স্থানে শতশত ট্রাক যাতায়াত করে। তাছাড়াও ব্রিজের ওপারে রয়েছে নবাবগঞ্জ উপজেলা সদরের একমাত্র কাঁচা বাজার আর এপারে নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ও নবাবগঞ্জ থানা। ব্রিজটি ভেঙ্গে গেলে নবাবগঞ্জ উপজেলা বাসীর বিশাল ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হবে। নবাবগঞ্জ উপজেলাবাসী এই সমস্যা সমাধানের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।

আজকের কা.চি/31 আগষ্ট 2016/ আরিফ






Related News

Comments are Closed