Main Menu

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড়ের নব্য নূর হোসেন হতে চায় হবুল

এন.এন.এস.২৪, সিদ্ধিরগঞ্জ (২৫’আগষ্ট ১৬ইং রোজ বৃহস্পতিবার) ঃ সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধিন শিমরাইল মোড়ে নব্য নূর হোসেন হতে মরিয়া হাবিবুল্লাহ হবুল। একের পর এক সরকারি জমি দখলের নেশায় ধরেছে তাকে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে অর্ধশতাধিক সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে হবুল নিজে উপস্থিত থেকে শিমরাইল মোড় আফির উদ্দিন সুপার মার্কেটের সামনে সরকারি জমি দখল করে দোকান নির্মাণ করতে গিয়ে পুলিশের ভয়ে পিছু হঠে। তবে তার আগেই হবুল বাহিনী আফির উদ্দিন মার্কেটের টেলিফোন, বিদ্যুৎ লাইনের খুটি ও গ্যাস লাইনের পাইপ ভেঙ্গে ফেলে। পুলিশের কঠোর অবস্থানের কারণে সন্ত্রাসীরা পিছু হঠলেও অভিযোগ জানা গেছে, আফির উদ্দিন মার্কেট মালিক নূর ইসলামকে বিভিন্ন হুমকি দিচ্ছে হবুলের চামচা চাটুকাররা।
আফির উদ্দিন সুপার মার্কেটের মালিক নূর ইসলাম অভিযোগ জানায়, আমার মার্কেটের সামনের ওই জায়গাটি সরকারি। আমাদের কাছ থেকেই সরকার জমি একুয়ার করে নিয়েছে। পৈত্রিক সূত্রে ওই সরকারি জমি ভোগদখল করার অধিকার আমার। অথচ আমি তা করছিনা। জনস্বার্থে জায়গাটি রাস্তা হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। গত ৬’মাস ধরে হাবিবুল্লাহ হবুল সরকারি এ জায়গাটি দখল করে দোকান নির্মাণ করার পাঁতারা চালাচ্ছে। এমনকি দোকান নির্মাণের আগেই ভাড়া দেওয়ার জন্য ৪’জনের কাছ থেকে ৩৫’লাখ টাকা অগ্রিম নিয়ে নিয়েছে হবুল। রাস্তা হিসেবে ব্যবহৃদ সরকারি ওই জায়গাটুটু দখল মুক্ত রাখতে হাবিবুল্লা হবুলের বিরুদ্ধে আমি এডিএম কোর্টে মামলা দায়ের করি। যার নং ১৪৫। ওই মামলার দু’টি তারিখ চলে গেলেও বিবাদী পক্ষ আদালতে হাজির হয়ে জবাব দিচ্ছে না। হবুল মামলা মোখাবেলা না করে আজ(বৃহস্পতিবার) অর্ধশতাধিক সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে নিজে উপস্থিত থেকে আমার মার্কেট ও বাড়ীর গ্যাস লাইন বিচ্ছিন্ন, বিদ্যুৎ ও টেলিফোন লাইনের খুটি ভেঙ্গে দোকান নির্মাণের কাজ শুরু করে। আমি বাঁধা দিলে বিভিন্ন হুমকি দেয়। তখন নিরুপায় হয়ে থানা পুলিশকে খবর দেই। পরে পুলিশ এসে কঠোর অবস্থান গ্রহন করলে হবুল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী দ্রæত চলে যায়। নূর ইসলাম আরো জানায়, পুলিশের ভয়ে হবুল চলে গেলেও দোকান নির্মাণের তৎপরতা বন্ধ করছেনা। আমাকে ১’টি দোকান দিয়ে ম্যানেজ করে সরকারি ওই জায়গাটি দখল করার প্রস্তাব দিয়ে তদ্ববির চালিয়ে যাচ্ছে তার সকল অপকর্মের ভাগিদাররা। আমি রাজি না হলে জোর করেই দোকান নির্মাণ করবে এমন হুমকিও দিচ্ছে তারা। এতে আমি জীবনের চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছি।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ক্ষমতাসিন দলের স্থানীয় কয়েকজন নেতাকে হাত করে নব্য নূর হোসেন বনে গিয়ে হাবিবুল্লাহ হবুল আটি,ওয়াপদা কলোনী, হীরাঝিল ও শিমরাইল মোড়ে কোটি কোটি টাকার সরকারি জমি দখলের মহোৎসব শুরু করেছে। তার মালিকানাধিন আহসান উল্লাহ সুপার মার্কেটের সামনে ও পশ্চিম পাশে কমপক্ষে ৫০’শতাংশ সরকারি জমি দখল করে লাখ লাখ টাকা আগ্রিম নিয়ে ভাড়া দিয়েছে।তার অনুগত সাদেক নামে এক লোকের নামে বনায়ন করার অঙ্গীকার দিয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ১০’শতাংশ জমি লীজ নিয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গাসহ দখল করে নেয় কমপক্ষে ৩০’শতাংশ জমি। দখলীয় ওই জমিতে বনায়নের পরিবর্তে ইজারার শর্ত ভঙ্গ করে গড়ে তুলে কয়েকটি বড় খাবার হোটেল। এসব হোটেল ভাড়া দিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে অর্ধকোটি টাকা। হোটেল ও ফুটপাথ দোকানসহ দৈনিক ভাড়া পাচ্ছে কমপক্ষে ৫০’হাজার টাকা। এছাড়াও হবুল বিভিন্ন এলাকায় সরকারি জমি দখল করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সূত্র জানায়,হবুল নব্য নূর হোসেন হওয়ার পথে হাঠছে। ইতোমধ্যে হবুল একটি সন্ত্রাসী বাহিনীও গড়ে তুলেছে। হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক অশিক্ষিত হাবিবুল্লাহ হবুলকে নূর হোসেন বানিয়ে আর্থিক ফাঁয়দা লুটতে বুদ্ধিদাতা হিসেবে কাজ করছে জাতীয় পার্টির ব্যানারে এমপি নির্বাচন করার ইচ্ছা পোষনকারী মহা বাটপার আবদুল মান্নান ওরফে মতলববাজ মন্না, চামচামি জগতের মহা গুরু তরুণ দল নেতা টিএইচ তোফা ওরফে চামচা তোফা,গিরিঙ্গির মাষ্টার আলম ওরফে গোধুলী আলম, পুলিশের কনস্টেবল থেকে চাকুরীচ্যুৎ সুদখোর সাদেকুর রহমান ওরফে ভলেন্টিয়ার সাদেকসহ আরো কয়েকজন। এদের উস্কানিতে হবুল গায়ে মানেনা আপনে মোড়ল সেজে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে দাপটের সাথে। ভয়ে নিরীহ লোকজন কোন প্রতিবাদ না করায় হবুল নিজেকে খুবই ক্ষমতাবান মনে করছে। ঘৃনার সাথে স্থানীয় কয়েকজন লোক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, হবুল তার মার্কেটে সারা দেশে বিতর্কিত ভন্ড দেওয়ানবাগীর আস্তানা বানিয়ে ইসলাম ধর্ম বিরোধী কাজ করছে। দেওয়ানবাগীর শিষ্য হবুল নিজেকে শিমরাইল এলাকার খোদা দাবি করছে(নাউযুবিল্লাহ মিন জালেক) বলে কয়েকজন অনুসারি জানায়। তার ইসলাম বিরোর্ধী কর্মকান্ডের কারণে কয়েক মাস আগে হাউজিং এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা জুতা পিটা করার ঘোষনা দেওয়ার সংবাদ প্রকাশিত হয় স্থানীয় কয়েকটি দৈনিক পত্রিকায়। এর পর হবুল কিছুটা নিরব হয়ে পড়ে। বিতর্কিত হবুলের সরকারি জমি দখলের আগ্রাসন ও নানা অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ভাবে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করার দাবি জানিয়েছে সচেতন মহল।

আজকের কালের চিত্র/ আরিফ






Related News

Comments are Closed