Main Menu

সোনারগাঁয়ে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা

সোনারগাঁ প্রতিনিধিঃ

hottaনারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে যৌতুকের দাবীতে ঝুমা আক্তার (২০)কে শারিরীক নির্যাতনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী সোহাগ (২৪) ও তার পারবারের বিরুদ্ধে। গতকাল বুধবার ভোর রাতে বৈদ্যেরবাজার পশ্চিম হামছদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্ত্রী হত্যার পর ঘাতক স্বামী ও শ্বশুর শ্বাশুড়ি পলাতক রয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। হত্যার ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে সোহাগের বাড়ি ঘর ভাংচুর করেছে নিহতের স্বজনেরা।
নিহত ঝুমা আক্তারের ভাই সালাউদ্দিন জানান, গত সাত মাস আগে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের পশ্চিম হামছাদী গ্রামের নবী হোসেনের ছেলে সোহাগের সাথে তার বোনের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় স্বর্ণালংকার ও আসবাবপত্র ছাড়াও ছেলে পক্ষের দাবীকৃত যৌতুকের এক লাখ টাকার মধ্যে আশি হাজার টাকা নগদ পরিশোধ করা হয়। কিন্তু বাকি বিশ হাজার টাকার জন্য বিয়ের পর থেকে ঝুমাকে নির্যাতন করতো তার স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন। তাছাড়াও গাজীপুর জেলার এক মেয়ের সাথে ঝুমার স্বামীর পরকিয়া প্রেমের সম্পর্কও ছিল। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া লেগে থাকতো। গত মঙ্গলবার রাতে যৌতুকের টাকার জন্য ঝুমাকে মারধর করে তার স্বামী সোহাগ। বিষয়টি গভীর রাতে তার মোবাইলে ফোন দিয়ে ঘটনাটি জানায় বোন ঝুমা। পরে তারা ভোর সকালে বোনের শ্বশুর বাড়ি গিয়ে কোন লোকজন না দেখে ঘরে ভেতর মেঝেতে মৃত অবস্থায় বোনকে দেখতে পায়। পরে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।
সোনারগাঁ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মারুফ আহম্মেদ জানান, মৃত দেহের বিভিন্ন স্থানে বিশেষ করে মাথা, হাত ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে নির্যাতনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। নিহত ঝুমা বৈদ্যেরবাজার ইউপির দামোদরদী গ্রামের সোলেমান মিয়ার মেয়ে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামীসহ তার বাবা মা ও ভাইয়েরা পলাতক রয়েছে।
এদিকে ঝুমার স্বজনেরা হত্যার খবর পেয়ে তার শ্বশুর বাড়ির দুটি টিনের ঘর ভাংচুর করেছে। এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আজকের কালের চিত্র/24 আগষ্ট 2016/ আরিফ






Related News

Comments are Closed