Main Menu

সিদ্ধিরগঞ্জে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোড় পূর্বক জমি দখলে চেষ্টা ভূমিদস্যু ফারুক গংদের

05 (Medium) (1)স্টাফ রিপোর্টারঃ সিদ্ধিরগঞ্জের আটি ওয়াপদা এলাকার বাসিন্দা অসহায় আঃ জলিলের ৮১শতাংশ জমি দীর্ঘ দিন যাবৎ ভূমিদস্যু ফারুক, রিপন ও করিম গং জোড় পূর্বক দখল করে অবৈধ বালু ও চুনা পাথরের ব্যবসা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উক্ত জমির বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্টের বিচারাধীন অংশে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও দুধর্ষ ফারুক গং স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে জবর দখল করে অবৈধ ব্যবসা বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। শুক্রবার (২৯ জুলাই) সকালে আঃ জলিল গং মহামান্য হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞার সাইনবোর্ড পুলিশের সহায়তায় জমির অংশে দেওয়ার জন্য গেলে দখলদার ফারুক, রিপন, খলিল, আলেক এর সন্ত্রাসীরা এক জোট হয়ে হামলা করে কয়েকজনকে আহত করেছে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
ভূক্তভোগী আঃ জলিল জানায়, আটি ওয়াপদাকলোনী এলাকায় ৮১শতাংশ জমি আমার ভাই-বোন ও পরিবার ওয়ারিশ সুত্রে মালিক। ভূমি দস্যু ফারুক, রিপন, হারুন, আলেক, হাসেম গং সংঘবন্ধ চক্রটি ভুয়া জালিয়াত চক্র জাল দলিল করে আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি জবর দখল করে নেয়। দীর্ঘ দিন যাবৎ নি¤œ আদালতে উক্ত জমির মামলা চললেও আদালত মিমাংশা করতে না পারায় মামলাটি উচ্চ আদালতে স্থান্তর করা হয়। মহামান্য হাইকোর্ট গত ২৫ জুলাই তারিখে জমির উপর একটি স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। উক্ত নিষেধাজ্ঞার সাইনবোর্ড শুক্রবার সকালে স্থানীয় গণ্যমাণ ব্যক্তিবর্গ সহ পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় জমিতে টাঙ্গানোর জন্য গেলে দখলদার ফারুক, রিপন, করিম, আনোয়ার সহ সংঘবন্ধ সন্ত্রাসীরা আমাদের উপর অতর্কিত হামলা করে কয়েকজনকে আহত করেছে। পরে খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছেঁ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। তিনি আরও জানান, স্থানীয় থানাকে ভূমিদস্যুরা মোটা অংকের টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে এসব অবৈধ কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরাফত আলী জানান, আজ সকালে ওয়াপদা এলাকায় একটি ঘটনা ঘটেছিল। আমরা উভয় পক্ষকে স্থিতিশীল পরিবেশ বজায় রাখার জন্য বলেছি। এ ছাড়া কেউ যদি আমাদের সহযোগীতা চায় আমরা তাদেরকে পরিপূর্ণ আইনগত সহায়তা করবো।






Related News

Comments are Closed