Main Menu

রূপগঞ্জ-সোনারগাঁও থানার সীমান্তবর্তীতে হওয়ায় কেরোসিন ঢেলে গৃহবধুকে হত্যার ঘটনায় মামলা নিতে দুই থানায় ঘড়িমসি ॥

রূপগঞ্জ (নারায়নগঞ্জ)প্রতিনিধি ঃ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ও সোনারগাঁও থানার সীমান্তবর্তী মৈকুলী বড়ভিটা এলাকায় দাবিকৃত যৌতুকের টাকা না পেয়ে ও পরকিয়ার প্রতিবাদ করায় স্বামীসহ তার লোকজন কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে চায়না (২৮) নামে এক গৃহবধুকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ২৩ মার্চ দুপুর টায় কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়ার পর ২৫ মার্চ ভোরে ওই গৃহবধুর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মামলা নিতে ওই দুই থানা পুলিশ ঘরিমশি শুরু করেছে। সোনারগাঁও থানা পুলিশ বলছে গৃহবধুর মৃত্যুর ঘটনাটি রূপগঞ্জে। অপর দিকে, রূপগঞ্জ থানা পুলিশ বলছে গৃহবধুর মৃত্যুর ঘটনাটি সোনারগাঁও থানা এলাকায়। বাধ্য হয়ে ওই গৃহবধুর ভাই আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে আলাদা ভাবে দুটি থানায় হত্যাকান্ডের অভিযোগ এনে অভিযোগ দায়ের করেছেন। গৃহবধু চায়না মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগড় থানার কুকুটিয়া এলাকার মৃত সিরাজ ব্যাপারীর মেয়ে।
গৃহবধুর ভাই আনোয়ার হোসেন জানান, গত ১২ বছর পুর্বে তার বোন চায়নার সঙ্গে মৈকুলী বড়ভিটা এলাকার সুরুজ মিয়ার ছেলে শুক্কুর মিয়ার ইসলামী সরিয়াহ মোতাবেক বিয়ে হয়। বর্তমানে বোনের সংসারে সিয়াম ও মরিয়ম নামে দুই সন্তান রয়েছে। বেশ কিছুদিন ধরে স্বামী শুক্কুর মিয়া যৌতুকের দুই লাখ টাকার জন্য চায়নাকে চাপ প্রয়োগ করছে। এছাড়া শুক্কুর আলীর সঙ্গে রোকেয়া নামে এক নারীর পরকিয়া সম্পর্ক গড়ে উঠে। এসবের প্রতিবাদ করায় প্রায় সময়ই চায়নাকে শারিরিক নির্যাতন করতো তার স্বামী। বোনের শান্তির চিন্তা বিবেচনা করে যৌতুকের ৩০ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়।
গত ২৩ মার্চ দুপুর ২টার দিকে শুক্কুর মিয়া, রোকেয়াসহ কয়েকজন যৌতুকের বাকি টাকা না পেয়ে চায়নার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে চায়না আতœরক্ষার্থে একটি পুকুরে লাফিয়ে পড়ে। স্থানীয় লোকজন চায়নাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়। দুই দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ২৫ মার্চ ভোরে গৃহবধু চায়না মৃত্যুবরণ করে।
বোন চায়নাকে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে হত্যার অভিযোগ এনে আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরে থানা পুলিশ ঘটনাটি সোনারগাঁও থানায় বলে সেখানে অভিযোগ করতে পাঠিয়ে দেয়। অপর দিকে সোনারগাঁও থানায় অভিযোগ করতে গেলে বলা হয় ঘটনাটি রূপগঞ্জে। গত দুই দিন ধরে রূপগঞ্জ ও সোনারগাঁও থানা পুলিশ ঘরিমশি করেছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। তবে এ ঘটনায় শেষ মুমুর্তে সোনারগাঁও থানায় আতœহত্যার ঘটনা দেখিয়ে একটি মামলা নেয় পুলিশ।
গৃহবধু চায়নার পরিবারের অভিযোগ, দাবিকৃত যৌতুকের টাকা না পেয়ে চায়নাকে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে হত্যা করা হয়েছে। স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল অভিযুক্তদের পক্ষ নিয়ে থানায় আতœহত্যার মামলা করায়।
এ ব্যপারে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি সোনারগাঁয়ের মৈকুলী বড়ভিটা এলাকায়। তাই বিষয়টি সোনারগাঁও থানা পুলিশকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে।
সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনজুর কাদের বলেন, প্রথমে আমরা মনে করেছি মৈকুলী বড়ভিটা এলাকাটি রূপগঞ্জে পড়েছে। পরে সোনারগাঁও এলাকায় বলে নিশ্চিত হয়েছি। প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে গৃহবধু চায়না অভিযান করে কেরোসিন ঢেলে আতœহত্যা করেছে। তাই আতœহত্যার একটি মামলা নেয়া হয়েছে।






Related News

Comments are Closed