Main Menu

চলমান অপপ্রচার বন্ধে ধামগড় ইউনিয়ন আ’লীগের সা. সম্পাদকের লিখিত বিবৃতি চেয়ারম্যান প্রার্থী বাছাই ভোটে কোন জালিয়াতি হয়নি-আব্দুল আলী ভূঁইয়া

স্টাফ রিপোর্টারঃ
অবশেষে চলমান সংকট নিরসনে কয়েকদিন বার্ধক্য জনিত কারণে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ থাকার পর এবার সুস্থ হয়ে ভোট জালিয়াতির অভিযোগের ভিত্তিতে রিপোর্ট ও বিবৃতি দিলেন ধামগড় ইউনিয়ন আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল আলী ভূঁইয়া। সোমবার বন্দর থানা আ’লীগ সভাপতিকে উদ্দেশ্য করে প্রেরণকৃত তার স্বাক্ষরিত এক বিবৃতি ও তদন্ত রিপোর্ট দিয়ে এ বিষয়ের ব্যাখ্যা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ধামগড় ইউনিয়নের প্যাডে দেয়া বিবৃতিতে তিনি উল্লেখ করেন, ‘যে আশরাফুল আলম, সাং-বটতলা, যাকে নিয়ে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে, তিনি ২০০৩ সালে ধামগড় ইউনিয়ন আ’লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সদস্যপদ লাভ করেন এবং কমিটির সদস্য পদ নং-১৫। সদস্যপদ লাভের পর তিনি দলের সাথে সক্রিয় ভূমিকা রেখে চলেছেন। গত ১৪.০৩.১৬ তারিখে একক প্রার্থী বাছাইয়ে এক সভার আয়োজন করা এবং উক্ত সভায় ভোট গ্রহণ কার্যক্রমে আশরাফুল আলম, সাং-বটতলা ও আশরাফ উদ্দিন, সাং-আমৈর উপস্থিত হয়ে দূজনেই আ’লীগের সদস্যপদের দাবী করেন বলে জানা যায়। তখন বন্দর থানা আ’লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম এ রশিদ উক্ত আ’লীগ সদস্য আশরাফুল আলম, সাং-বটতলাকে ভোট দেয়ার জন্য রেখে, আশরাফ উদ্দিন, সাং-আমৈরকে সেখান থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। দূজন প্রতিদ্বন্দি থেকে যখন ১জন প্রার্থীকে চূড়ান্ত করা সম্ভব না হওয়ায়, তখন ভোটাভুটির মাধ্যমে প্রার্থীতা নির্ধারনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক উপস্থিত কাউন্সিলরদের ভোটে আলমাস ভূঁইয়াকে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি বিজয়ী ঘোষণা দেন এবং সেই ঘোষণাপত্রে আপনার স্বাক্ষর রয়েছে। তাহলে এ বিষয়ে এখন প্রশ্ন তোলা অবান্তর।
উল্লেখ্য উক্ত পার্থী বাছাই ভোটে জাতীয় পার্টির আশরাফ উদ্দিনকে দিয়ে ভোট দেয়া হয়েছে এবং জালিয়াতির অভিযোগে পরাজিত প্রার্থী মাসুম আহম্মেদের করা আবেদনের প্রেক্ষিতে ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়, যেখানে ধামগড় ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল আলী ভূইয়া কমিটিতে থাকায় ও তিনি অসুস্থ হওয়ায় তদন্ত কমিটি ঠিকভাবে কাজ করতে পারছিলনা। গতকাল তিনি সুস্থ হয়ে তার পক্ষ থেকে দেয়া এই বিবৃতির পর তদন্ত কমিটি আলোর দিশা খুঁজে পাবে এবং সকল বিভ্রান্তি দূর হয়ে অপপ্রচার বন্ধের মাধ্যমে সকলে সঠিক তথ্য পাবেন বলে মনে করেন তিনি। এমনকি গত কয়েকদিনে ভোট জালিয়াতি প্রমানিত মর্মেও কয়েকটি স্থানীয় পত্রিকায় খবর বের হওয়ায় ভোটারারা দ্বিধা-দ্বন্দে পড়ে যান, এ বিবৃতির পর তার অবসান ঘটবে বলে মনে করে নির্বাচন বোদ্ধারা।






Related News

Comments are Closed