Main Menu

বাংলাদেশকে নিয়ে এত ভয় কেন

taskin-sani-jugantor_7505নেটে ব্যাটিংয়ে শুভাগত হোম, বোলিংয়ে সাকলাইন সজীব। ঢাকা থেকে সকালের ফ্লাইটে বাঙ্গালোরে নেমেই অনুশীলনে নেমে পড়লেন তারা। তখন কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে ও অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা আলোচনায় ব্যস্ত। টিম কম্বিনেশন নিয়ে দল এখন মহাবিপদে। শনিবার রাতে হাজারো প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে খুঁজতে বিছানায় গেছেন মাশরাফি। প্রশ্নগুলো হতে পারে এরকম- নেদারল্যান্ডস ম্যাচে আম্পায়ার ছিলেন ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার। রিপোর্ট করার ১১ দিনের মধ্যেই পরীক্ষার ফল দেয়া শেষ! সেই ভারত ও অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের আগে কেন নিষিদ্ধ হলেন তাসকিন ও সানি। এই বাংলাদেশকে নিয়ে কেন এত ভয় অন্যদের? অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াইয়ের আগে অনিবার্যভাবে আলোচনায় তাসকিন ও সানি। মাশরাফিসহ টিমের সবার বিশ্বাস, তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন ঠিক আছে। কিন্তু মুখে বললে তো কাজ হবে না। টাইগার অধিনায়কের আশা, আইসিসি যেন সঠিক নিয়মেই তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে। তাসকিন ও সানিকে হারানোর পর বাংলাদেশ দল একেবারেই ভেঙে পড়েছে। এ হতাশার জবাব মাঠে দিতে পারলেই সবচেয়ে বেশি খুশি হবে ১৬ কোটি মানুষ। ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে কাল মাশরাফি বলেন, ‘সবচেয়ে ভালো হয় মাঠে প্রতিবাদটা জানাতে পারলে। আমরা অবশ্যই চাই সামনের ম্যাচটায় ভালো ক্রিকেট খেলতে। কিন্তু আমাদের করতে হবে অন্য কিছু! সানির বিষয়টা আমরা গ্রহণ করেছি। কিন্তু মনে তাসকিনের বিষয়টা চেপে রেখে কাজ করা খুবই কঠিন হয়ে যাচ্ছে।’ যে ম্যাচে বোলিং অ্যাকশন নিয়ে তাসকিনকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে ওই ম্যাচে তার একটা বলও অবৈধ হয়নি। তার কনুই ১৫ ডিগ্রির বেশি বেঁকে যায়নি। মাশরাফির প্রশ্ন আইসিসির সিস্টেম নিয়েও। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) বিষয়টা গুরুত্বের সঙ্গে দেখুক, এটাই চাওয়া টাইগার অধিনায়কের। তবে চাপা কষ্টগুলো জয় দিয়েই মুছে ফেলতে চায় বাংলাদেশ। মাশরাফি বলেন, ‘আমরা অবশ্যই মাঠে নামব জয়ের জন্য। প্রতিপক্ষ যারাই হোক না কেন, আমাদের প্রথম কাজই হবে জয়ের জন্য মাঠে নামা।’ তাসকিনকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন ঠিক আছে। আমাদের কথাগুলো আমি বিসিবিকে বলতে পারি। বিসিবি যেভাবেই হোক আইসিসির সঙ্গে এটা নিয়ে আলোচনা করবে। আইসিসি সব সময় তরুণ ক্রিকেটারদের উৎসাহিত করে। আশা করছি তাসকিন ন্যায্য বিচার পাবে।’ মাশরাফি বলেন, ‘ওই (নেদারল্যান্ডস) ম্যাচটার সঙ্গে মিলিয়ে যেসব পরীক্ষা নেয়া হয়েছে, ওই বলগুলো একটাও অবৈধ ছিল না। তাহলে ম্যাচে অবৈধ নেই, কীভাবে তাকে আমরা সাসপেন্ড করব!’ এ ঘটনা বাংলাদেশের পুরো পরিকল্পনাটাই নষ্ট করে দিয়েছে। মাশরাফি বলেন, ‘আমরা সর্বশেষ যে কয়টা ম্যাচ জিতেছি, সেসব ম্যাচে ছেলেটা (তাসকিন) ভালো শুরু এনে দিয়েছে। সে বাদ পড়ায় আমাদের পুরো পরিকল্পনা পরবির্তন করতে হয়েছে।’ ফলটা দু’দিন আগে দিলেও বাংলাদেশ দু’জন খেলোয়াড় দেশ থেকে এনে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করতে পারত। মাশরাফি বলেন, ‘সবকিছু ম্যানেজ করা আমাদের জন্য কঠিন হয়ে গেছে। এর থেকে কঠিন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশর মানুষ আমাদের পাশে ছিল। এবারও থাকবে জানি। আমরাও চেষ্টা করব তাদের প্রতিদান দিতে। তবে কাজটা অবশ্যই কঠিন।’ এই গ্রুপে সব দলই কঠিন প্রতিপক্ষ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি ২০ ক্রিকেটে কখনোই জিততে পারেনি বাংলাদেশ। এবার কাজটা আরও কঠিন হয়ে গেল। মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের এই গ্র“পটা অনেক বেশি কঠিন। কাজটা এমনিতেই কঠিন ছিল। এখন তা আরও কঠিন হয়ে গেল। আমাদের অবশ্যই প্রথম চাওয়া আমরা যেন জিততে পারি। সেভাবেই পরিকল্পনা করব।’ বাংলাদেশ দল এমন পরিস্থিতিতে এর আগেও অনেকবার পড়েছে। কিন্তু যতবার টাইগারদের দমিয়ে রাখার চেষ্টা করা হয়েছে তারা অদম্য হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে এখন কি হচ্ছে, এসব চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে আমাদের ম্যাচে মনোযোগ দিতে হবে। আমার বিশ্বাস, ছেলেরা দেশের জন্য খেলবে। – See more at: http://www.jugantor.com/online/sports/2016/03/21/7505/%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%82%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B6%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%A8%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87-%E0%A6%8F%E0%A6%A4-%E0%A6%AD%E0%A7%9F-%E0%A6%95%E0%A7%87%E0%A6%A8#sthash.2rGo2nPl.dpuf






Related News

Comments are Closed