Main Menu

গোয়েন্ধা সংস্থাকে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানিয়েছে নুর হোসেনের ছোটভাই নুরুজ্জামান জজ আমার ভাইয়ের মুক্তির জন্য মানব বন্ধনে অংশ গ্রহন করতে কাউকে হুমকি দিয়েছি প্রমান করতে পারলে যে কোন সাঁজা মাথা পেতে নেব

p1-28-01-16সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি:
নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্ধা সংস্থাকে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানিয়ে আলোচিত ৭ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত নুর হোসেন চেয়ারম্যানের (কারাগারে আটক) ছোটভাই নুরুজ্জামান জজ অপ-প্রচারকারীদেরকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেছেন, আমার ভাইয়ের মুক্তির দাবীতে অনুষ্ঠিত মানব বন্ধনে অংশ গ্রহন করতে কোন ব্যক্তি বা নিরীহ গোষ্ঠির উপর জোড় প্রয়োগ করেছি ও এ এলাকায় বসবাস এবং ব্যবসা করতে দেবোনা বলে হুমকি দিয়েছি এমন অভিযোগ প্রমান করতে পারলে যে কোন সাঁজা মাথা পেতে নেব। গত বুধবার সকালে (২৭ জানুয়ারী) আমার বড়ভাই নুর হোসেন চেয়ারম্যানকে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে এশিয়ান হাইওয়ে হয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইল মোড় দিয়ে নারায়ণগঞ্জ আদালতে নেয়া হচ্ছে এমন সংবাদে শিমরাইল মোড়ে কর্মরত পরিবহন শ্রমিক,ফুটপাত ব্যবসায়ী,ছিন্নমূল হকার,বিভিন্ন শ্রেনী পেশায় নিয়োজিত নারী পুরুষ ও সিদ্ধিরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাকে ভালো বাসে এমন হাজারো জনতা তার নি:শর্ত মুক্তির দাবীতে সংহতি প্রকাশ করে। মানব বন্ধনে জোড় পূর্বক লোকজন জড়ো করা হয়েছে এমন একটি খবর সম্পর্কে জানতে চাইলে নুরুজ্জামান জজ এই প্রতিবেদকে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে একান্ত সাক্ষাতকারে এসব কথা বলেন।
এসময় নুরুজ্জামান জজ আরো বলেন, আমার বড়ভাই নুর হোসেন চেয়ারম্যান একজন জনপ্রিয় শ্রমিক নেতা,গরীব দু:খী মেহনতী মানুষের বন্ধু,দানবীর এবং একাধিকবার নির্বাচিত জনপ্রিয় চেয়ারম্যান। আমার ভাই দীর্ঘদিন যাবৎ অসহায় গরীব দু:খী নিরীহ মানুষকে বেচেঁ থাকার জন্য কর্মসংস্থানের জন্য কাজ করেছেন। তাই এই অঞ্চলের হাজার হাজার নারী ও পুরুষ তাকে এখনো ভালো বাসে। তাই নুর হোসেন চেয়ারম্যানকে আদালতে আনার খবর পেলেই সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে শত শত নারী পুরুষ তাদের প্রিয় নেতাকে একনজর দেখার জন্য আদালতের সামনে অবস্থান করে থাকে। আমার ভাইয়ের জনপ্রিয়তায় ঈর্শান্বিত হয়ে একটি কুচক্রী মহল আমাদের পরিবারকে নিয়ে চক্রান্ত করছে। আমাদের সম্পর্কে অপ-প্রচার করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার অপ-চেষ্টা চালাচ্ছে।
এব্যাপারে শিমরাইল এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আ:রব (৪৫),আমিন উদ্দিন (৬০),আক্কেল আলী (৬০),মোহাম্মদ আলী (৪৫),গিয়াস উদ্দিন (৫০) ও কালামের সাথে কথা হলে তারা জানায়, নুর হোসেনকে আমরা ভালো বাসী তাই আমরা তার মানব বন্ধনে অংশ গ্রহন করেছি। শিমরাইল মোড়ে কর্মরত কোন ব্যবসায়ী ও শ্রমিককে জোড় পূর্বক অংশগ্রন করতে বাধ্য করেনি। যারা এ নিয়ে অপ-প্রচার করছে আমরা তার তীব্র নিন্দা জানাই।






Related News

Comments are Closed