Main Menu

রূপগঞ্জে কৃষকদের জমি ও সরকারী খালে জোরপূর্বক বালু ভরাট

rupgonj pho 1 dt 06.01.2016গোলাম মোস্তফা তুহিন :
নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভোলাব ইউনিয়নের চারিতালুক এলাকার কাজলা বিলের কৃষকদের জমি জোরপূর্বক দখলে নিয়েছে ইটালিয়ান সিটি নামে একটি আবাসন প্রকল্প । জোরপুর্বক বালু ভরাট করার প্রতিবাদ করায় আবাসন প্রকল্পের নিয়োজিত সন্ত্রাসীরা নিরীহ কৃষকদের হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। ভয়ে নিরীহ এসব কৃষকরা প্রতিবাদ করার সাহসটুকুও পাচ্ছেনা। আবাসন প্রকল্পটির কাছ থেকে সরকারী খালও রক্ষা পায়নি। খাল ভরাট করে দখলে নিয়েছে তারা। এতে করে ওই খাল দিয়ে পানি নিষ্কাশন করা যাচ্ছেনা। ফলে শত শত বিঘা ইরি-বোরো চাষ চরম ভাবে ব্যহত হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করেই জোরপুর্বক বালু ভরাট কাজ অব্যাহত রেখেছেন প্রকল্পটি।
ক্ষতিগ্রস্থ্য কৃষক ও স্থানীয় সুত্র জানায়, দড়িচারিতালুক, চারিতালুক, পুবেরগাঁও, বাসন্দা, পাইস্কা, কুড়িয়াইল, করটিয়া, কুতুবপুর এলাকার কৃষকদের প্রায় ৩ হাজার বিঘা জমি রয়েছে কাজলা বিলে। আর ওই বিলে কৃষকরা শীত মৌসুমে ইরি ধান রোপন করেন। আর বর্ষা মৌসুমে চার দিক ঘের তৈরি করে মাছ চাষ করেন।  কাজলা বিলে ইটালিয়ান সিটি নামে একটি আবাসন প্রকল্প বেশ কয়েক বিঘা জমি ক্রয় করেন। এছাড়া কৃষকদের কাছ থেকে সাইনবোর্ড প্রতি ১০ হাজার টাকা করে ভাড়া নিয়ে বিলে প্রায় শতাধিক সাইনবোর্ড স্থাপন করেছে। কোন প্রকার অনুমোতি ছাড়াই বেশ কয়েক দিন ধরে আবাসন প্রকল্পের নিয়োজিত সন্ত্রাসী কাউসার, আল-আমিনসহ তাদের লোকজন  জোরপূর্বক কৃষকদের জমিতে ড্রেজারের মাধ্যমে বালু ভরাট করতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে কৃষকদের কয়েক বিঘা জমি বালু দিয়ে ভরাট করে ফেলেছে। শুধু তাই নয়, কাজলা বিলের পানি উন্নয়ন বোর্ডের খালটিও বালু দিয়ে ভরাট করা হয়েছে। এতে করে পানি নিষ্কাশন করতে পারছেনা স্থানীয় কৃষকরা। চলতি ইরি বুরো মৌসুমে জমিতে সেচ দিতে না পারায় শত শত বিঘা ইরি জমিতে ধান চাষ চরম ভাবে ব্যহত হচ্ছে। বালু ভরাট ও পানি না পাওয়ার কারনে ক্ষতির আশঙ্কায় রয়েছেন এখানকার কৃষকরা।
অভিযোগ রয়েছে, কাজলা বিলে থাকা জাহাঙ্গীর মোক্তার ১৯ শতাংশ, মহিবুর রহমান ১৯ শতাংশ, শিক্ষক এবাদ মাষ্টার ১ বিঘা, ব্যবসায়ী খোকন ভুইয়ার ২ বিঘা, তাহেরুল্লা মাষ্টারের ৫৮ শতাংশ, শিক্ষক সাদেকুর রহমান ১ বিঘা, মুক্তিযোদ্ধা হেলাল উদ্দিন ৫ বিঘা, আব্দুল খালেকসহ তার পরিবারের ৪ বিঘা, মনোয়ার হোসেনের ২ বিঘা , মতিউর রহমানের ৮ বিঘা, সরাফত আলী ও নোয়াব আলীর ২ বিঘা জমি দখলে নিয়েছে ইটালিয়ান সিটি নামে আবাসন প্রকল্পটি। কৃষকদের জমিতে জোরপুর্বক বালু ভরাট বন্ধ ও সরকারী খাল দখল মুক্ত করে কৃষকদের ইরি চাষে সহযোগিতা করার দাবি জানান ভুক্তভোগীরা। কৃষকরা অভিযোগ করেন, আবাসন প্রকল্পের নিয়োজিত সন্ত্রাসীরা প্রায় সময়ই কৃষকদের নানা ভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। ইটালিয়ান সিটির চেয়ারম্যান কবির হোসেন বলেন, আমাদের নিজের জমিতে বালু ভরাট কাজ চলছে। অন্য কারো জমিতে নয়। কৃষকরা যদি এ ধরনের অভিযোগ করে থাকে তবে সেটি সঠিক নয়। এছাড়া ভাড়ায় সাইনবোর্ড স্থাপনের বিষয়টি সঠিক নয়। আমাদের নিজেদের জমিতেই সাইনবোর্ড স্থাপন করেছি। ভোলাব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সামসুদ্দিন আহাম্মেদ বলেন, আবাসন প্রকল্প কর্তৃপক্ষ কৃষকদের জমিতে বালু ভরাট করতে নিষেধ করা হয়েছে। তবুও তারা বালু ভরাট করছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লোকমান হোসেন বলেন, জমি না কিনে কৃষকদের জমিতে জোরপুর্বক বালু ভরাট করবে এটা অন্যায়। তবে আমার কাছে যদি এ ধরনের অভিযোগ লিখিত ভাবে দেয়া হয় তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।






Related News

Comments are Closed