Main Menu

সোনারগাঁয়ে ব্রক্ষ্মপুত্র নদী থেকে বালু উত্তোলনের মহোৎসব

SAMSUNG CSC

SAMSUNG CSC

সোনারগাঁও সংবাদদাতা :
সোনারগাঁয়ের সনমান্দী ইউনিয়নের ইমানের কান্দী এলাকায় ব্রক্ষ্মপুত্র নদ থেকে অবাধে বালু উত্তোলনের মহোৎসব। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে শক্তিশালী ড্রেজার বসিয়ে নদ থেকে বালু উত্তোলন করে কৃষি জমি ভরাট করছে। বালু উত্তোলনের ফলে হুমকির মূখে পড়েছে ৪৭নং  ইমানেরকান্দী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও এলাকার কয়েক শ’ বিঘা ফসলী জমি নদে বিলিন হওয়ার পথে । বালু উত্তোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সনমান্দী ইউনিয়নের স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও উপজেলা সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আজিজুল ইসলাম মুকুলের বড় ভাই কামরুল ইসলাম বাবুল। অবেধ বালু উত্তোলনের এলাকাবাসী বাধা দিতে গেলে মামলাসহ প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে বালু সন্ত্রাসীরা বলে অভিযোগ করেছেন নিরীহ এলাকাবাসী । বালু খেকোদের হাত থেকে বিদ্যালয়টিসহ ফসলী জমি আশেপাশের গ্রাম রক্ষার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।
জানা গেছে, উপজেলা এলাকার মধ্যে দিয়ে ভয়ে যাওয়া ব্রক্ষপুত্র নদ। ব্রক্ষ নদ থেকে বুল খোকারা অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের ফলে আশপাশের গ্রাম অনেক অংশেই নদে ভেঙ্গে গেছে । সনমান্দী ইউনিয়নের স্থানীয় আওয়ামীলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে কামরুল ইসলাম বাবুলের নেতৃত্বে মিজান, আলেক মিয়া, আঃ সামাদ ও মুছতু মিয়াসহ প্রায় ১০/১২জনের একটি শক্তিশালী বালু সন্ত্রাসী সিন্ডিকেট করে প্রায় ২০ দিন যাবৎ অবৈধভাবে নদ থেকে বালু উত্তোলন করে আসছে। দুইটি শক্তিশালী ৬ ইঞ্চি মিনি ড্রেজারের মাধ্যে ইতিমধ্যে ঔ এলাকার শফি , দুলাল , মহসিন , শহিদুল্লাহসহ কয়েকজনের কৃষি জমি ভরাট করেছে বলে জানা গেছে । স্কুল ও মসজিদের পাশ ঘেষে ড্রেজারের পাইপ বসানোর ফলে ছাত্র-ছাত্রী স্কুলে যাওয়াসহ মুসল্লিদের নামাজ পড়তে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে।
বালু খেকো কামরুল ইসলাম বাবুল জানান, বালু উত্তোলন করছি মসজিদের জমি ভরাটের জন্য । ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাহাবুদ্দিন সাবু বিষয় জানেন । চেয়ারম্যান সাহাবুদ্দিন সাবু জানান, এ বিষয়ে আমি কোন কিছু জানি না । যারা অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিলে আমি প্রশাসনকে সহযোগিতা করব ।
উপজেলা কমিশনার (ভুমি) এসএম জাকারিয়া জানান, বিষয়টি আমি জানার পরই সনমান্দী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ডাকা হয়েছে সে এ বিষয়ে জানেন না বলে জানান । ইউনিয়ন তসিলদার ও পুলিশকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ।
উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আবু নাছের ভূঁঞা জানান, আমি বিষয়টি জেনে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশ ও ভূমি কর্মকতাদের পাঠানো হয়েছে । তাদের গ্রেফতারের অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে ।






Related News

Comments are Closed