Main Menu

আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমাবেশের প্রস্তুতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
৫ জানুয়ারি নির্বাচনের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে আজ মঙ্গলবার রাজধানীতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমাবেশের প্রাথমিক প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। সমাবেশ শুরুর জন্য এখন অপেক্ষা চলছে। আওয়ামী লীগ দুটি সমাবেশ করবে। বেলা আড়াইটায় বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ ও ধানমন্ডি-৩২ নম্বর সড়কের রাসেল স্কয়ারে সমাবেশ দুটি হবে।
বিএনপি বেলা দুইটায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করবে।
আওয়ামী লীগের দুটি সমাবেশে দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ জ্যেষ্ঠ নেতারা ভাগ হয়ে অংশ নেবেন।
বিএনপির সমাবেশে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অংশ নেবেন।
আওয়ামী লীগের সমাবেশের জন্য ইতিমধ্যে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে মঞ্চ তৈরির কাজ শেষ হয়েছে। সেখানে নিরাপত্তায় আছেন পুলিশের সদস্যরা, আছেন দলের নেতা-কর্মীও। এ ছাড়া বিভিন্ন স্থান থেকে আসা নেতা-কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে জড়ো হচ্ছেন।
আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ জানিয়েছেন, নির্ধারিত সময়ের আগেই নেতা-কর্মীরা সমাবেশস্থলে সমবেত হবেন।
বিএনপি তাদের সমাবেশের জন্য নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের দিকে মঞ্চ তৈরি করেছে। সেখানে কিছু নেতা-কর্মী আছেন। নিরাপত্তার জন্য আছে পুলিশ।
বিএনপির নেতা-কর্মীরা বলছেন, তাঁদের সমাবেশ শান্তিপূর্ণ হবে। সফল সমাবেশের জন্য প্রস্তুতি এগিয়ে চলছে।
প্রধান দুই দলের তিনটি সমাবেশের কারণে আজও রাজধানীতে ব্যাপক যানজট ও জনদুর্ভোগের আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ, তিনটি সমাবেশই হবে ব্যস্ততম সড়কে।
ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শোভাযাত্রার কারণে গতকাল সোমবার রাজধানীতে দিনভর যানজট ছিল। এতে ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়ে মানুষ।
আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বাইরে এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি আজ বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর দোলাইরপাড়ে ‘গণতন্ত্রের জন্য শান্তির মিছিল’ করবে।
বিএনপি জোটের শরিক বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দিনটি মিছিল, সমাবেশ ও আলোচনা সভার মাধ্যমে পালন করার কথা জানিয়েছে। তবে কর্মসূচি পালনের জন্য তারা কোনো স্থান বা সময় উল্লেখ করেনি।
এর আগে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছিল। কিন্তু সেখানে কেউই অনুমতি পায়নি।
গতকাল দুপুরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে দুই দলকে নিজ নিজ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়ার কথা জানান।
ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কিছু শর্ত সাপেক্ষে বিএনপিকে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
ডিএমপির জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হাসান সরদার বলেন, সমাবেশ করার ক্ষেত্রে বিএনপির জন্য যেসব শর্ত, তা আওয়ামী লীগের জন্যও প্রযোজ্য হবে।
গত বছর থেকে ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের বর্ষপূর্তিকে আওয়ামী লীগ ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ ও বিএনপি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করছে।






Related News

Comments are Closed