Main Menu

বিনামুল্যের বই নগদ টাকায় বিতরনে সিদ্ধিরগঞ্জে প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত, গাজি সেলিমকে গনধোলাই

সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধিন গোদলাইল এলাকায় ৮৯’নং তাঁতখানা সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়ে বিনামূল্যে বই নগদ ২’শ টাকায় ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে তুলে দেয়ার ঘটনায় বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকে বহিস্কার ও ম্যানেজিং কমিটিকে বিলুপ্ত করেছে উপজেলা শিক্ষা অফিসার। রোববার সকাল সাড়ে ১০’টায় বিদ্যালয়ে গিয়ে অভিভাবক ও ছাত্র/ছাত্রী কাছ থেকে নতুন বই বাবদ টাকা নেওয়ার প্রমান পাওয়ায় এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এ সময় শিক্ষা অফিসার বলেন ম্যানেজিং কমিটি সভাপতি গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপ্রতি এম এ বারি, যুবলীগ নেতা এস এম মাহাবুব ও গাজী সেলিম আহমেদ এর বিরুদ্ধে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট ও ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপাড়ার অসুবিধার করার কারনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ম্যাধমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানায়। এর আগের সকালে শত শত অভিভাবক ও ছাত্রছাত্রীরা বিদ্যালয় মাঠে র্দূনীতি বাজ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য গাজী সেলিম আহমেদকে গ্রেপ্তারের দাবি করে বিক্ষভ করেন। এদিকে বিদ্যালয় থেকে যাওয়ার সময় উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুমিনুল হক গনমাধ্যম কর্মীদের জানান, বিদ্যালয়ে এসে নতুন বই দেওয়ার কালে ছাত্র/ছাত্রীদের কাছ থেকে ২’শ টাকা করে নিয়েছে তার প্রমান পাওয়া যায়। এ বিশষটি জেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে লিখিত আকারের পাঠানো হবে। তার পর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার কানিজ ফাতেমা, যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম ভূইয়া, গোদনাইল আওয়ামীলীগে সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম ভূইয়া, আমির হোসেন প্রমূখ। এদিকে উপজেলা শিক্ষা অফিসার পরিদর্শন শেষে বিদ্যালয় ত্যাগ করার পর ক্ষুদ্ধ অভিভাবক স্কুল পরিচালনা পরিষদের সদস্য গাজী সেলিম আহমেদকে প্রধান শিক্ষকের রুম থেকে বের করে গনগোলাই দিয়ে বিদ্যালয় থেকে তাড়িয়ে দেয়। পরে এলাকাবাসী ও অভিভাবকরা র্দূনীতিবাজ বারি, মাহাবুব ও গাজী সেলিমকে ২৪’ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করার জন্য আইনশৃংখলা বাহিনীর প্রতি আহবান করে বলেন, যদি গ্রেপ্তার না করা হয় তাহলে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলা হবে।
প্রসঙ্গত. গত শুক্রবার ও শনিবার বিদ্যালয়টিতে নতুন বই দেওয়ার নামে ম্যানেজিং কমিটি সদস্য মাহাবুব ও গাজী সেলিম আহমেদ ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে ২’শ টাকা করে নেয়। এ সময় অভিভাকবরা প্রতিবাধ করলে গাজী সেলিম একাধিক অভিভাবক দের সাথে অশোভন আচনর করে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেয়। পরে গনমাধ্যমকর্মী ও অভিবাবকদের চাপে পরে কিছু শিক্ষার্থীর টাকা ফেরত দেয়। বাকি টাকা ফেরত দেওয়ার কথা ছিলে আজ রোববার । কিন্তু ৩য় ,৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীরে ৮শত শিক্ষার্থীদের টাকা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (বিকেল সাড়ে ৪ টা) ফেরত দেয়নি পরিচালনা কমিটির সদস্যরা।



« (Previous News)



Related News

Comments are Closed