Main Menu

নীরবের মৃত্যুতে ৩০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ কেন নয়

3রাজধানীর শ্যামপুরে পয়োনিষ্কাশন নালায় পড়ে শিশু ইসমাইল হোসেন নীরবের মৃত্যুর ঘটনায় তার পরিবারকে ৩০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

আজ মঙ্গলবার এ-সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে এই রুল জারি করেন বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ।

পরে রিটকারী চিলড্রেন চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আইনজীবী আবদুল হালিম  বলেন, পাঁচ বছরের শিশু নীরবের মৃত্যুর ঘটনায় ৩০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে গত রোববার হাইকোর্টে রিট আবেদনটি করা হয়। শুনানি শেষে আজ আদালত রুল জারি করেছেন। ১৩ বিবাদীকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বিবাদীদের মধ্যে সরকার ছাড়াও রয়েছেন ঢাকা ওয়াসার চেয়ারম্যান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ও সচিব, শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সহকারী কমিশনার (ভূমি), কদমতলী শ্যামপুর ইন্ডাস্ট্রিয়াল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক, ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক, শ্যামপুর ইউনিট ফায়ার সার্ভিসের প্রধান ও কদমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)।

আইনজীবী আবদুল হালিম বলেন, রিটে তিনটি নির্দেশনা চাওয়া হয়েছিল। শুনানি নিয়ে আদালত তিন মাসের মধ্যে ঢাকা মহানগরের মানচিত্র অনুযায়ী সিটি করপোরেশনের আওতায় ঢাকনাবিহীন ম্যানহোল, নলকূপ ও পয়োনিষ্কাশনের পাইপের তথ্য জানাতে বলেছেন। একই সময়ের মধ্যে যে নালায় শিশু নীরব পড়ে গিয়েছিল, সেটি কাদের, এর তদন্ত প্রতিবেদন এবং নীরব মারা যাওয়ার পর থেকে কদমতলী থানার ওসি কী কী পদক্ষেপ নিয়েছেন, তার প্রতিবেদন দিতে বলেছেন হাইকোর্ট।

৮ ডিসেম্বর বিকেলে বাসার কাছে খেলার সময় খোলা পয়োনালায় পড়ে যায় নীরব। চার ঘণ্টা পর সেখান থেকে প্রায় এক মাইল দূরে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে নালার মুখ থেকে তাকে নিথর ও অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।






Related News

Comments are Closed