Main Menu

সিনহায় শ্রমিক নির্যাতন

9শৌরভ মীর :
সিনহায় মালিকের চোখকে ফাঁকি দিয়ে অসহায় শ্রমিকের উপর অত্যাচার অভিযোগ শ্রমিকদের মোঃ শৌরভ মীরঃ- নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ থানাধীন কাঁচপুরে অবস্থিত সিনহা গ্রুপের কিছু অসাধু কর্মকর্তা/কর্মচারীদের হাতে সীকার, নিরীহ অসহায় কর্মচারী  বেলায়েত হোসেন (সহকারি এডমিন) পিতা-মৃত সোবহান মুন্সী, মোঃ রফিক (সিকিউরিটি গার্ড)। সুত্রমতে-দীর্ঘ ৬বছর ধরে চাকুরী করেন বেলায়েত হোসেন এবং রফিক । কিন্তু হঠাৎ করে সিকিউরিটি ইন্সচার্জ-শাহ আলম, জাহিদ, দেলোয়ার এবং সিকিউরিটি কমান্ডার মোতাহার আমাদেরকে বিনা নোটিশ এ চাকুরী থেকে বের করে দেন এবং আমাদেরকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দেন যে এই ব্যাপারে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষকে জানালে, তোমাদেরকে জানে মেরে ফেলবো এই ভয়ে অসহায় কর্মচারী বৃন্দ মুখ খুলছে না। তথ্য পাওয়ার পর-সরেজমিনে গিয়ে তাদের সঙ্গে আলাপকালে জানা যায় আরও গোপন কিছু তথ্য- সিকিউরিটি ইন্সচার্জ-শাহ আলম, জাহিদ, দেলোয়ার এবং সিকিউরিটি কমান্ডার মোতাহার এরা সকলে মিলে সিনহা গ্রুপ থেকে মালিকের চোখকে ফাঁকি দিয়ে ষ্টোর থেকে বিভিন্ন ধরনের মালামাল চুরি করে বাহিরে বিক্রয় করে দেয়। সিনহা গ্রুপের নিয়ম অনুযায়ি সেন্ট্রাল ষ্টোর থেকে মালামাল বাহির করার  নিয়ম না থাকা সত্ত্ওে অর্থলুভি কর্মকর্তা/কর্মচারী-শাহ আলম,জাহিদ, দেলোয়ার এবং  মোতাহার। বেলায়েত হোসেন ও রফিক জানান-তারা প্রতি মাসে কমপক্ষ্যে ৫০থেকে এক কোটি টাকার মালামাল মালিকের চোখকে ফাঁকি দিয়ে বের করে এবং বিক্রয় করে তারা কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে সিনহা গ্রুপ থেকে। অসহায়েত্ব্যের কন্ঠে-বেলায়েত হোসেনের সংবাদিকদেরকে বলেন- সিকিউরিটি ইন্সচার্জ-শাহ আলম, জাহিদ, দেলোয়ার এবং সিকিউরিটি কমান্ডার মোতাহের এরা সকলে মিলে আমার কাছ থেকে সাদা কাগযে সই নেয় এবং বলে আমি যদি আমার চাকুরির ব্যাপারে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষেকে যানায় তা হলে আমার নামে বিভিন্ন ধরনের চুরির মামলায় জড়িত করবে।






Related News

Comments are Closed