Main Menu

আবাহনী-মোহামেডান খেলায় আগের মত উত্তেজনা নেই

news-4ক্রীড়া প্রতিবেদক- ঢাকায় আজ রবিবার সন্ধ্যে সাড়ে ছ’টার দিকে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের আবাহনী বনাম মোহামেডানের ম্যাচ। এই প্রজন্মের ফুটবল প্রেমীদের কাছে এই খবরটি তেমন সাড়া না জাগালেও আজ থেকে কুড়ি কিংবা পঁচিশ বছর আগে বাংলাদেশে যারা খেলার মাঠের খোঁজখবর রাখতেন তারা নিশ্চিতভাবেই মনে করতে পারবেন, আবাহনী বনাম মোহামেডান ম্যাচ কি তীব্র উত্তেজনাকর একটি ব্যাপার ছিল।

গত চৌত্রিশ বছর ধরে নিয়মিত মাঠে গিয়ে খেলা দেখছেন এস এম রফিক উদ্দিন। ক্রীড়াঙ্গনে সবাই তাকে চেনেন রফিক ভাই নামে। তিনি অবশ্য মোহামেডানের সমর্থক। একান্ত আলাপকালে তিনি স্মৃতিচারণ করছিলেন পুরনো দিনের আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচের। তখন ম্যাচের কয়েকদিন আগে থেকেই ঢাকা আবাহনী আর মোহামেডানের পতাকায় ভরে যেত। এখন যেমন বিশ্বকাপের সময় আপনারা আর্জেন্টিনা আর ব্রাজিলের পতাকা দেখতে পান তার চেয়েও বেশী পতাকা দেখা যেত তথন। আমরা সকাল এগারোটার দিকেই মাঠে চলে যেতাম। নইলে বসার জায়গা পাওয়া যেত না। আমি এখনো মাঠে যাই। তবে খেলা শুরুর কিছুক্ষণ আগেই যাই। খেলা নিয়ে উত্তেজনা কখনো মারামারি ভাংচুরে গড়াত। মাঠ ছেড়ে সেসব সংঘর্ষ কখনো কখনো শহর জুড়ে ছড়িয়ে পড়তে দেখা যেত। কিন্তু এখন সেই উত্তেজনা আর নেই কেন?

রফিক উদ্দিন বলেন, নব্বই দশকের মাঝামাঝি সময় লীগে একবার বিদেশী কোটা বন্ধ করে দেয়া হল। সেবার মাঠে তেমন দর্শক হল না। তারপর থেকে যে দর্শক কমল, আর ফিরল না। আর আবাহনী মোহামেডানও এর পর থেকে খারাপ করতে শুরু করলো, সেই সাথে আকাশ সংস্কৃতির কারণে বিদেশী লীগগুলো সরাসরি দেখার সুযোগ তৈরি হওয়ায় বাংলাদেশের ফুটবল থেকেও মুখ ঘুরিয়ে নিলো ফুটবল প্রেমীরা। এখন আর আবাহনী মোহামেডানের নামে পুরো দেশকে দুভাগ হতে দেখা যায় না, যেমনি দেখা যায় ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা প্রশ্নে।

ফুটবল বিষয়ক সাংবাদিকরা বলছেন, এখন আর আবাহনী মোহামেডান বাংলাদেশের সেরা দল নয়। তারা ভাল দল গঠনেও মনযোগী নয় আজকাল। আর সেরা দল যেগুলো সেগুলোও সমর্থকদের নিয়ে ভাবে না। সব মিলে নতুন করে সমর্থক গোষ্ঠীও গড়ে উঠছে না সেভাবে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের প্রফেশনাল ফুটবল লীগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী বলেন, বাংলাদেশের ফুটবল এখন আর তারকা ভিত্তিক নেই বলে মানুষের আগ্রহ হচ্ছে না। এখন আবাহনী মোহামেডানের একটি ম্যাচে সর্বোচ্চ দশ হাজার দর্শক হয় বলেও উল্লেখ করেন তিনি। তবে ফুটবলের সার্বিক জনপ্রিয়তা আবারো ফিরে আসছে বলে আশাবাদি। তিনি জানান, সিলেটে চলমান সাফ কিশোরদের ফুটবল টুর্নামেন্টে মানুষের আগ্রহ সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে।

রফিক ভাইও বলছেন, ফুটবলই বাংলাদেশের খেলা। ক্রিকেট নয়। ক্রিকেটে ফলাফল আসছে বলে মানুষ আগ্রহ দেখাচ্ছে। ফুটবলেও যদি ফলাফল আসে তাহলে ক্রিকেট কখনো ফুটবলের সাথে পেরে উঠবে না।






Related News

Comments are Closed