Main Menu

টেকনাফে দুই শতাধিক পরিবারের চাষাবাদ অনিশ্চিত: এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

news-11টেকনাফ প্রতিনিধি- টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নে লেদা খালের উপর কতিপয় স্থানীয় প্রভাবশালী কতৃক বাধঁ নির্মাণ করে স্বাভাবিক পানি চলাচল বন্ধ করে দেওয়ায় আগামী ব্যুরো মৌসুমে দুই শতাধিক পরিবারের চাষাবাদ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ভোক্তভুগী পরিবার সদস্যরা  দ্রুত সময়ের মধ্যে বাঁধ খুলে দেওয়ার দাবীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন।

জানা যায়, গত ৩০ সেপ্টেম্বর বিকাল ৫ টায় স্থানীয় ভোক্তভুগী পরিবার গুলো লেদা খালের উপর অবৈধ ভাবে বাঁধ নিমাণ করে লেদাস্থ অনিবন্ধিত শরনার্থী (টাল) শিবিরে পানি সরবাহ করায় নির্মিত বাঁধটি খোলে দেয়ার দাবীতে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার গুলো এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। স্থানীয় তরুন নেতা আবছার কামাল ছিদ্দিকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, আলী হোসেন, মোঃ হোসেন সিকদার, মোঃ হাসেম, সোনা মিয়া, রিয়াদ মোর্শেদ শিমুল, আবুল মন্জুর, আবদু সালাম, আবুল কাছিম, সাহাব উদ্দীন, হেলাল উদ্দীন, আব্দুল গফুর। উপস্থিত ছিলেন- ওলা মিয়া, কামাল হোসন, জেকের মিয়া, আবুল কালাম, মোঃ হোসেন, আমির হোসেন, আবদুল গফ্ফার, আহমদ , জাফর আলম, নাজু মিয়া, মোঃ কালু, জিয়াউর রহমান, আবুল হাশিম, নজির আহমদ, মোক্তার আহমদ, আবদু শুক্কুর, আবু ছিদ্দিক,  ছৈয়দ আলম, মীর কাশেম, জামাল হোসেনসহ অসংখ্য ভোক্তভুগী জনগণ উপস্থিত ছিলেন। এসময় বক্তারা বলেন- স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা লেদা খালে বাধঁ নির্মাণ করে মোটা অংকের বিনিময় লন্ডন ভিত্তিক এনজিও মুসলমি এইড কতৃপক্ষের সাথে চুক্তি করে লেদা আন-রেজিষ্টার্ড শরনার্থী শিবিরে পানি সরবরাহ করে যাচ্ছে।

এতে দুই শতাধিক পরিবার ফসলী জমিতে চাষাবাদ করতে পারছেনা। যুগযুগ ধরে এখানকার জনগন এই খালের পানি দিয়ে শীতকালিন মোসুমী বিভিন্ন ধরনের শবজী চাষ এবং ব্যুরো চাষ করে আসছিল। কিন্তু ২০১০ সাল থেকে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় বিদেশী এনজিও মুসলিম এইড অবৈধ ভাবে খালের উপর বাঁধ দিয়ে লেদা অনিবন্ধিত শরর্নাথী শিবিরে পানি সরবরাহ করায় গরীব কৃষকদের উপর নেমে এসেছে চরম দূর্ভোগ। বক্তারা আরো বলেন- খালের বাঁধ নির্মাণের ফলে আমাদের ৪০ একর জমি অকেজো হয়ে পড়েছে। এতে আমরা অনেকে বেকার হয়ে পড়ায় পরিবার গুলোর মধ্যে নানান দুরাবস্থা বিরাজ করছে। আমাদের সন্তানদের দু’ বেলা খাবার দিতে পারছিনা। গরমের সময় ব্যবহারের পানির জন্য দূর্ভোগে পড়তে হয়।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য জাফর আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালীর ইন্ধনে মুসলিম এইড অবৈধভাবে বাঁধ নির্মাণ করে সাধারণ মানুষের মুখের খাবার চিনিয়ে নিচ্ছে। স্থানীয় সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্যা মর্জিনা আক্তার ছিদ্দিকী লেদা খালের উপর অবৈধ বাধঁ নির্মাণের প্রতিবাদ জানান। বক্তারা আগামী ব্যুরো মৌসুমে দুই শতাধিক পরিবারের ৪০ একর জমির চাষাবাদ করার স্বার্থে দ্রুত সময়ের মধ্যে অবৈধভাবে নির্মিত লেদা খালের বাঁধ খোলে দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। অন্যতাই, ভোক্তভুগী জনগন লেদা অনিবন্ধিত শরর্নাথী শিবিরের যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়ার হুশিয়া দেন।






Related News

Comments are Closed