একাদশে ভর্তিতে পছন্দের শীর্ষে সরকারি কলেজ

বেসরকারি কলেজের প্রতি আগ্রহ কম একাদশ শ্রেণির ভর্তিইচ্ছুদের। এ কারণে দেশের সরকারি কলেজগুলোতে আসনের চেয়ে অতিরিক্ত আবেদন জমা পড়েছে। এর মধ্যে ঢাকার একটি কলেজ শীর্ষ স্থানে রয়েছে। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা শহরের নামিদামি অনেক বেসরকারি কলেজে ভর্তির জন্য আশানুরূপ আবেদন পড়েনি বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে।

ঢাকা ও আন্তঃবোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এবার সারাদেশে মোট ১৬ হাজার ৪৯৬টি কলেজে প্রথম ধাপে ১৩ লাখ ১৯ হাজার ৬৭০টি আবেদন আসে। তার মধ্যে প্রথম তালিকায় ১২ লাখ ৩৮ হাজার ২৫২ জনকে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য মনোনীত করা হয়েছে। আবেদনকারীদের মধ্যে ৯৪ শতাংশ শিক্ষার্থী প্রথম তালিকায় স্থান পেয়েছে।

জানা গেছে, এবার সবচেয়ে বেশি আবেদন এসেছে সরকারি কবি নজরুল কলেজে, দ্বিতীয় স্থানে রাজশাহী কলেজ, তৃতীয় স্থানে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, চতুর্থ সরকারি বাঙলা কলেজ, পঞ্চম সরকারি এ এইচ কলেজ (বগুড়া), ষষ্ঠ সরকারি তোলারাম কলেজ (নারায়ণগঞ্জ), সপ্তম নরসিংদী সরকারি কলেজ, অষ্টম চিটাগাং কলেজ, নবম সরকারি গুরুদয়াল কলেজ, দশম স্থানে ঢাকা কলেজ রয়েছে।

পরবর্তী অবস্থানে রয়েছে- কুমিল্লা ভিক্টরিয়া সরকারি কলেজ, চিটাগং সরকারি সিটি কলেজ, রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ, সরকারি আনন্দ মডেল কলেজ, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ, কক্সবাজার সরকারি কলেজ, শেরপুর সরকারি কলেজ, চৌমুহনী সরকারি এস এ কলেজ, ফেনী সরকারি কলেজ, ঢাকা রেসিডিয়ান্ট মডেল কলেজ।

ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক ড. হারুন অর রশিদ বলেন, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে বেসরকারি কলেজের চেয়ে সরকারি কলেজে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বেশি। ভর্তি পছন্দে প্রথমে সারাদেশের সরকারি কলেজগুলো এগিয়ে রয়েছে। এরপরেই রাজধানীর নামিদামি বেসরকারি কয়েকটি কলেজের নাম রয়েছে।

কলেজ পরিদর্শক বলেন, যেসব শিক্ষার্থীর ভর্তির জন্য কলেজ নির্বাচন হয়েছে তারা নিশ্চয়ন না করলেও দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করতে পারবে। যদি কেউ নিশ্চয়ন করেও কিন্ত পছন্দ না তবে সে মাইগ্রেশনের সুযোগ পাবে। আসন খালি থাকলে মেধাক্রম ও কোটাভিত্তিক শিক্ষার্থীর নির্বাচিত কলেজ তালিকার উপরের দিকের কলেজগুলোতে অটোমোটিক মাইগ্রেশনের সুযোগ থাকবে।

তথ্যমতে, মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ শিক্ষার্থী পাস করেছে। আর কলেজে ভর্তি হতে আবেদন করেছে ১৩ লাখ ১৯ হাজার ৬৭৫ জন। এরমধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এক হাজার ৫৯৩ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। মাধ্যমিকে উত্তীর্ণ হয়েও এবার দুই লাখ ৫৬ হাজার ৪২৯ শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে আবেদন করেননি; যাদের বেশিরভাগই ঝরে পড়বে বলে বোর্ড কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন।

উল্লেখ্য, গত ১৩ থেকে ২৪ মে রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত অনলাইন ও এসএমএসের মাধ্যমে কলেজে ভর্তি হতে আবেদন করেন শিক্ষার্থীরা। গত শনিবার দিবাগত রাতে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে মনোনীতদের প্রথম তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

এরপর দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ শুরু হবে ১৯ ও ২০ জুন। দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের তালিকা প্রকাশ করা হবে ২১ জুন। তৃতীয় পর্যায়ে আবদেন গ্রহণ করা হবে ২৪ জুন। এই পর্যায়ের তালিকা প্রকাশ হবে ২৫ জুন। আনুষঙ্গিক কাজ শেষ করে ২৭ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ভর্তি চলবে। আগামী ১ জুলাই থেকে একাদশের ক্লাস শুরু হবে।






Related News

Comments are Closed