ময়মনসিংহে সবুজ হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন

শফিউর রহমান সেলিম,ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের পাঁচবাগ ইউনিয়নের ঝাওয়াইল গ্রামের সবুজ মিয়া (২৫) নামে এক যুবক আদম বেপারী ও ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের বেদম পিটুনী খেয়ে জীবন বাঁচাতে ব্রহ্মপুত্র নদে ঝাপ দেন।
এর পর এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনো সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ সবুজ মিয়ার। গত মঙ্গলবার ১৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে উপজেলার তেতুলিয়া গ্রামের মড়লবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ফাঁসি দাবী করে হাজারো এলাকাবাসী পাঁচবাগ ইউনিয়ন পরিষদের সামনের সড়কে ঘন্টাব্যাপী মানব বন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন। এ কর্মসূচীতে নারী-পূরুষসহ এলাকার সর্বস্তরের লোকজন অংশ নেন।
পরে বিক্ষোভকারীরা আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ ঘেরাও করেন। এ সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহ কামরুল ইসলাম ফকরুল দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবী করে বক্তব্য দেন।
এ ঘটনায় ১৯ সেপ্টেম্বর রাতেই সবুজের বাবা শহীদুল্লাহ বাদী হয়ে পাঁচবাগ ইউপি সদস্য ঝিতু মিয়া, পালের বাজার গ্রামের স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা জহিরুল, জয়নাল, ঝাওয়াইল গ্রামের আদম বেপারী আলী নেওয়াজ, সন্ত্রাসী সেলিম ও চৌকা গ্রামের মাজেদুলসহ ৬জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৬/৭ জনকে আসামী করে গফরগাঁও থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলার আসামী আলী নেওয়াজ ও স্বপন এখন জেল হাজতে রয়েছে।
নিখোঁজ সবুজের বাবা শহীদুল্লাহ ও ছোট ভাই পারভেজ মানব বন্ধন শেষে সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, আদম বেপারী তার ভাড়া করা সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত অবস্থায় আমরা পালাতে সক্ষত হলেও সবুজকে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে লাশ ব্রহ্মপুত্র নদে ফেলে দেয়।
প্রসঙ্গত উপজেলার পাঁচবাগ ইউনিয়নের ঝাওয়াইল গ্রামের আদম বেপারী আলী নেওয়াজ বিদেশের পাঠানোর জন্য একই গ্রামের রাসেল, পারভেজ ও তাদের মামা সাইদুলের কাছ থেকে ১০লাখ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে বিদেশ না পাঠিয়ে ওই টাকা নিয়ে সটকে পড়ে নেওয়াজ। পরে ১৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে আদম বেপারী আলী নেওয়াজ জমি রেজিষ্ট্রি করতে গফরগাঁও আসার খবর শুনে নিখোঁজ সবুজ, তার রাসেল, পারভেজ, বাবা শহীদুল্লাহ ও মামা সাইজুলকে নিয়ে গফরগাঁও সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে আসেন। সেখানে আদম বেপারী আলী নেওয়াজের কাছে তারা বিদেশে পাঠানোর জন্য দেয়া সম্পুন্ন টাকা ফেরত চান।
এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নেওয়াজ ও তার ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা বাড়ি ফেরার পথে তেতুলিয়া গ্রামের মড়লবাড়ি এলাকায় সবুজদের ইজি বাইক আটকিয়ে সবুজ ও তাদের ভাইয়ের বেদম পিটুনী ও দাঁ দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। এ সময় সবুজ জীবন বাঁচাতে পাশের ব্রহ্মপুত্রে ঝাপ দেয়।
গফরগাঁও থানার ওসি একে এম মাহবুবুল আলম, এ ঘটনায় নিখোঁজ সবুজের বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়েরের পর দুজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বাকি আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে পুলিশ।






Related News

Comments are Closed